নোয়াখালীতে নুতন আক্রান্ত ৭৭, চাটখিল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জরুরী বিভাগ বাদে সব বন্ধ

মিজানুর রহমান রিয়াদঃ

নমুনা দেওয়ার পর মারা যাওয়া নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনী পৌরসভার গণিপুর এলাকার ব্যবসায়ী আমিনুল ইসলাম মিন্টু (৪৭)সহ নতুন করে আরও ৭৭জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এনিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৩৫২জন।

শনিবার দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নোয়াখালী সিভিল সার্জন ডা. মো মোমিনুর রহমান।

সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, জেলায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন আরও ৭৭জন। যার মধ্যে জেলার সদর উপজেলায় ৪, বেগমগঞ্জে ৪২, সোনাইমুড়ীতে ৩, সুবর্ণচরে ৩, সেনবাগে ৪, কবিরহাটে ১৬ ও চাটখিলে ৫জন। জেলায় এ পর্যন্ত ৩হাজার ১৭৭জনের নমুনা পরীক্ষার জন্য প্রেরণ করা হয়েছে। যার মধ্যে ২হাজার ৮৩৮জনের ফলাফল এসেছে। আইসোলেশনে রয়েছে ৩২০জন। যার মধ্যে কোভিড হাসপাতাল শহীদ ভুলু স্টেডিয়ামে রয়েছেন ১৯জন। সুস্থ হয়েছেন ২৭জন। মারা গেছেন ৫জন।

কবিরহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. ফজলুল হক বাকের অপু জানান, আক্রান্ত ১৬জনের মধ্যে নরোত্তমপুরে ১০, ঘোষবাগে ২, ধানশালিকে ২, সুন্দলপুরে ১ ও বাটইয়া ইউনিয়নে ১জন রোগী রয়েছে। এদের মধ্যে সিভিল সার্জন কার্যালয়ের একজন স্টাফ ও ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একজন কমিউনিটি হেলথ্ ফোভাইডর রয়েছে। আক্রান্তদের বাড়ী লকডাউন করে তাদের আইসোলেশনের ব্যবস্থা করা হবে। তাদের সংস্পর্শে আসা বাকীদের নমুনা সংগ্রহ করা হবে।

বেগমগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. অসীম কুমার দাস বলেন, চৌমুহনী বাজারের ব্যবসায়ী ওই ব্যক্তি ৪-৫ দিন ধরে জ্বর, কাশি, শ্বাস কষ্টে ভুগছিলেন। গত মঙ্গলবার দুপুরে করোনার উপসর্গ নিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসলে তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়। এর পরদিন বুধবার সকাল ৮টার দিকে তিনি মারা যান। শনিবার সকালে পাওয়া রিপোর্টে তিনিসহ ৪২জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে বেশির ভাগই চৌমুহনী পৌরসভার বাসিন্দা। তাদের বাড়ী লকডাউন করে সংস্পর্শে আসা সকলের নমুনা নেওয়া হবে।

উপজেলা ভিত্তিক আক্রান্তের সংখ্যাঃ জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩৫২জন। যার মধ্যে রয়েছে বেগমগঞ্জে ১৭৮জন, সদরে ৪১জন, কবিরহাটে ৫৪, চাটখিলে ২৬, সোনাইমুড়ীতে ১৮জন, হাতিয়ায় ৬জন, সেনবাগে ১১জন, কোম্পানীগঞ্জ ৭, সুবর্ণচর উপজেলায় ১১জন। এদের মধ্যে মারা গেছেন, সোনাইমুড়ীতে মোরশেদ আলম (৪৫) নামে এক ইতালি প্রবাসী, সেনবাগে এক রাজমেস্ত্রী মো. আক্কাস (৪৮), বেগমগঞ্জে তারেক হোসেন (৩০) ও আমিনুল ইসলাম মিন্টু (৪৭) নামের দুই ব্যবসায়ী ও সোনাইমুড়ীতে ফখরুল ইসলাম বাচ্চু (৫৯) নামের এক কৃষক।

এ দিকে চাটখিলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দুজন কর্মচারীর নুতন করে করোনা শনাক্ত হওয়ায় তারা তাদের জরুরী বিভাগ ছাড়া সকল বিভাগের কার্যক্রম বন্ধ করে দিয়েছে।

 

Share Button

সর্বশেষ আপডেট



» চাটখিলের সন্তান বাঁধনের জিপিএ ফাইভ অর্জন

» নারীর লাশ ঝুলছে, সন্তানের পানিতে,স্বামী পলাতক

» সোনাইমুড়ী প্রেসক্লাবের নুতন সভাপতি খোরশেদ আলম সাধারণ সম্পাদক বেলাল হোছাইন ভূঁইয়া

» করোনা দুর্যোগে নোয়াখালীর ৩০ হাজার মানুষের পাশে প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারী জাহাঙ্গীর আলম

» বেগমগঞ্জে ঈদের রাতে আ,লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ সহ আহত ৯ গ্রেফতার ৩

» নোয়াখালী সিভিল সার্জন অফিসের ফেসবুক আইডি হ্যাক

» চাটখিলে বাবার বাড়ী থেকে ১ সন্তানের জননীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

» করোনা উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তির কয়েক ঘন্টা পরে মারা গেলেন বেগমগঞ্জের একজন

» স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘উইফরইউ পাঠশালা’র ১২০ শিক্ষার্থী পেল ঈদ উপহার ও নগদ অর্থ

» নোয়াখালীতে নুতন আক্রান্ত ৭৭, চাটখিল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জরুরী বিভাগ বাদে সব বন্ধ

ফেইসবুকে প্রিয় নোয়াখালী

সম্পাদক ও প্রকাশক:: কামরুল ইসলাম কানন।
যোগাযোগ:: ০১৭১২৯৮৩৭৫১।
ইমেইল [email protected]
Desing & Developed BY Trust soft bd
,

নোয়াখালীতে নুতন আক্রান্ত ৭৭, চাটখিল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জরুরী বিভাগ বাদে সব বন্ধ

মিজানুর রহমান রিয়াদঃ

নমুনা দেওয়ার পর মারা যাওয়া নোয়াখালীর বেগমগঞ্জ উপজেলার চৌমুহনী পৌরসভার গণিপুর এলাকার ব্যবসায়ী আমিনুল ইসলাম মিন্টু (৪৭)সহ নতুন করে আরও ৭৭জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। এনিয়ে জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ৩৫২জন।

শনিবার দুপুরে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নোয়াখালী সিভিল সার্জন ডা. মো মোমিনুর রহমান।

সিভিল সার্জন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, জেলায় নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন আরও ৭৭জন। যার মধ্যে জেলার সদর উপজেলায় ৪, বেগমগঞ্জে ৪২, সোনাইমুড়ীতে ৩, সুবর্ণচরে ৩, সেনবাগে ৪, কবিরহাটে ১৬ ও চাটখিলে ৫জন। জেলায় এ পর্যন্ত ৩হাজার ১৭৭জনের নমুনা পরীক্ষার জন্য প্রেরণ করা হয়েছে। যার মধ্যে ২হাজার ৮৩৮জনের ফলাফল এসেছে। আইসোলেশনে রয়েছে ৩২০জন। যার মধ্যে কোভিড হাসপাতাল শহীদ ভুলু স্টেডিয়ামে রয়েছেন ১৯জন। সুস্থ হয়েছেন ২৭জন। মারা গেছেন ৫জন।

কবিরহাট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. ফজলুল হক বাকের অপু জানান, আক্রান্ত ১৬জনের মধ্যে নরোত্তমপুরে ১০, ঘোষবাগে ২, ধানশালিকে ২, সুন্দলপুরে ১ ও বাটইয়া ইউনিয়নে ১জন রোগী রয়েছে। এদের মধ্যে সিভিল সার্জন কার্যালয়ের একজন স্টাফ ও ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একজন কমিউনিটি হেলথ্ ফোভাইডর রয়েছে। আক্রান্তদের বাড়ী লকডাউন করে তাদের আইসোলেশনের ব্যবস্থা করা হবে। তাদের সংস্পর্শে আসা বাকীদের নমুনা সংগ্রহ করা হবে।

বেগমগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. অসীম কুমার দাস বলেন, চৌমুহনী বাজারের ব্যবসায়ী ওই ব্যক্তি ৪-৫ দিন ধরে জ্বর, কাশি, শ্বাস কষ্টে ভুগছিলেন। গত মঙ্গলবার দুপুরে করোনার উপসর্গ নিয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসলে তার নমুনা সংগ্রহ করা হয়। এর পরদিন বুধবার সকাল ৮টার দিকে তিনি মারা যান। শনিবার সকালে পাওয়া রিপোর্টে তিনিসহ ৪২জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে বেশির ভাগই চৌমুহনী পৌরসভার বাসিন্দা। তাদের বাড়ী লকডাউন করে সংস্পর্শে আসা সকলের নমুনা নেওয়া হবে।

উপজেলা ভিত্তিক আক্রান্তের সংখ্যাঃ জেলায় মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৩৫২জন। যার মধ্যে রয়েছে বেগমগঞ্জে ১৭৮জন, সদরে ৪১জন, কবিরহাটে ৫৪, চাটখিলে ২৬, সোনাইমুড়ীতে ১৮জন, হাতিয়ায় ৬জন, সেনবাগে ১১জন, কোম্পানীগঞ্জ ৭, সুবর্ণচর উপজেলায় ১১জন। এদের মধ্যে মারা গেছেন, সোনাইমুড়ীতে মোরশেদ আলম (৪৫) নামে এক ইতালি প্রবাসী, সেনবাগে এক রাজমেস্ত্রী মো. আক্কাস (৪৮), বেগমগঞ্জে তারেক হোসেন (৩০) ও আমিনুল ইসলাম মিন্টু (৪৭) নামের দুই ব্যবসায়ী ও সোনাইমুড়ীতে ফখরুল ইসলাম বাচ্চু (৫৯) নামের এক কৃষক।

এ দিকে চাটখিলে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দুজন কর্মচারীর নুতন করে করোনা শনাক্ত হওয়ায় তারা তাদের জরুরী বিভাগ ছাড়া সকল বিভাগের কার্যক্রম বন্ধ করে দিয়েছে।

 

Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



web-ad

সর্বশেষ আপডেট





সম্পাদক ও প্রকাশক:: কামরুল ইসলাম কানন।
যোগাযোগ:: ০১৭১২৯৮৩৭৫১।
ইমেইল [email protected]

Developed BY Trustsoftbd