রামগঞ্জে বিয়ের প্রলোভনে ২মাদ্রাসা ছাত্রীকে ভাগিয়ে নিয়ে চাঁদা দাবি

আবু তাহের, রামগঞ্জ ঃ
লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে মোঃ মানিক হোসেন নামের এক বখাটে জুথি আক্তার জান্নাত ও তাছলিমা আক্তার নামের ৮ম শ্রেনীতে পড়–য়া ২মাদ্রাসা ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভনে ফোনে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে কুমিল্লা মামার বাসায় রেখে দুই পরিবারের কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবির অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে ৭নং দরবেশপুর ইউনিয়নের আইয়েনগর গ্রামের পাঁচু পাটোয়ারী বাড়িতে। বিষয়টি সর্বত্র জানাজানি হলে পাঁচু পাটোয়ারী বাড়ির মানিকের মামা দেলোয়ার হোসেন উল্টো ওই দুই ছাত্রীর অভিভাবকদের বিরুদ্ধে দরবেশপুর ইউনিয়ন পরিষদে একটি অভিযোগ দায়ের করেছে। ওই অভিযোগের আলোকে ২৬আগষ্ট ইউপি কার্যালয়ে গ্রাম আদালতে শুনানির দিন ধার্য করেছে।
সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ৭নং দরবেশপুর ইউনিয়নের আইয়েনগর গ্রামের পাঁচু পাটোয়ারী বাড়ির দেলোয়ার হোসেনের ভাগীনা মোঃ মানিক (১৭) একই বাড়ির হাছিনা বেগমের বেগমের মেয়ে জুথি আক্তার জান্নাতকে ১৩ আগষ্ট বৃহস্পতিবার বিকেলে বিয়ের প্রলোভনে মোবাইল ফোনে পার্শ্ববর্তী সমিতির বাজারে যেতে বলে। এসময় জুথি একই বাড়ির চা দোকানদার আলমগীর হোসেনের মেয়ে তাসলিমাকে সাথে নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। পরে মানিক ২ছাত্রীকে সমিতির বাজার থেকে বালুয়া চৌমুহনী টু রামগঞ্জে হয়ে চাঁদপুর লঞ্চঘাটে গিয়ে লঞ্চযোগে ঢাকায় নিয়ে যায়। এরপর ঢাকা থেকে কুমিল্লা গিয়ে গৌরিপুরে মানিকের বড় মামা আনোয়ারের বাসায় মামানী পারভীনের কাছে রেখে বাড়িতে চলে আসে। পরে বিষয়টি জানাজানি হলে মানিকের মামানী পারভীন ওই দুই ছাত্রীকে নিয়ে ঢাকা মিরপুর ইষ্টার্ন হাউজিং বায়তুল আহম্মেদ ১৬/১২ একটি ভাড়াবাসায় তাদের আটকে রাখে। এদিকে জুথি ও তাসলিমার পরিবার তাদের এদিক সেদিক খুজতে গেলে বাড়ির দেলোয়ার হোসেন ওই দুই ছাত্রীর পিতা ও মায়ের কাছে কুমিল্লা সেনাবাহিনীর একটি ক্লাবে আটক আছে বলে সেখান থেকে তাদের ছাড়িয়ে আনতে পঞ্চাশ হাজার টাকা লাগবে বলে চাঁদা দাবি করে। এক পর্যায়ে এলাকার লোক দেলোয়ারকে এলাকার লোকজন চাপ সৃষ্টি করলে গত ২৩ আগষ্ট সোমবার তাসলিমাকে ঢাকা থেকে এনে তার গার্ডিয়ানের কাছে পৌছেঁ হস্তান্তর করলেও শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত জুথি আক্তার এখনো ঢাকার মিরপুর ওই স্থানে আটক রয়েছে।
জুথির মা হাছিনা বেগম জানান, মানিকের মামা দেলোয়ারের দাবিকৃত চাঁদার টাকা না দেওয়ার এখন পর্যন্ত আমার মেয়ে জুথিকে ঢাকার মিরপুরে আটকিয়ে রেখেছে। আমার ঘরে কোন পুরুষ মানুষ না থাকায় কি করবো বুঝে উঠতে পারছি না।
অভিযুক্ত মানিক ও তার মামা দেলোয়ার হোসেন জানান, এ বিষয়ে আমরা কিছু জানিনা। আমার বিরুদ্ধে যদি কোন অপরাদ প্রমানিত করতে পারে তাহলে যে কোন সাজা মাথা পেতে নেবো।
রামগঞ্জ থানা এএসআই শাহাআলম জানান, ছাত্রীর পিতা থানায় অভিযোগ করতে এসেছে। কিন্তু বিষয়টি স্থানীয় চেয়ারম্যান মিমাংশা করে দেওয়া আশ্বাস দেওয়ায় থানায় আর অভিযোগ হয়নি।

Share Button

সর্বশেষ আপডেট



» চাটখিলের রামনারায়নপুরে যুবদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন

» আবারও দক্ষিণ আফ্রিকায় ডাকাতের গুলিতে নোয়াখালীর যুবক খুন

» রামগঞ্জে কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় বিধবার উপর হামলা

» এএসপি পদোন্নতিতে লিটনকে চাটখিলে সংবর্ধনা

» বেগমগঞ্জে মাদ্রাসায় শিশু শিক্ষার্থীকে বলৎকার, ২ কিশোর আটক

» চাটখিল ও সোনাইমুড়ীতে পূজামণ্ডপ পরিদর্শন ও অনুদান দিলেন জাহাঙ্গীর আলম 

» ধর্ষকদের জন্য আ’লীগের দরজা চিরতরে বন্ধ:ওবায়দুল কাদের

» বাহরাইনে সড়ক দূর্ঘটনায় সেনবাগের হিরন নিহত

» চাটখিলে ধর্ষক শরীফের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে জনতার মানববন্ধন

» গুলি ফুটিয়ে ভয় দেখিয়ে আরেক নারীকে ধর্ষন যুবলীগ নেতা শরীফের

ফেইসবুকে প্রিয় নোয়াখালী

সম্পাদক ও প্রকাশক:: কামরুল ইসলাম কানন।
যোগাযোগ:: ০১৭১২৯৮৩৭৫১।
ইমেইল [email protected]
Desing & Developed BY Trust soft bd
,

রামগঞ্জে বিয়ের প্রলোভনে ২মাদ্রাসা ছাত্রীকে ভাগিয়ে নিয়ে চাঁদা দাবি

আবু তাহের, রামগঞ্জ ঃ
লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে মোঃ মানিক হোসেন নামের এক বখাটে জুথি আক্তার জান্নাত ও তাছলিমা আক্তার নামের ৮ম শ্রেনীতে পড়–য়া ২মাদ্রাসা ছাত্রীকে বিয়ের প্রলোভনে ফোনে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে কুমিল্লা মামার বাসায় রেখে দুই পরিবারের কাছ থেকে ৫০ হাজার টাকা চাঁদা দাবির অভিযোগ উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে ৭নং দরবেশপুর ইউনিয়নের আইয়েনগর গ্রামের পাঁচু পাটোয়ারী বাড়িতে। বিষয়টি সর্বত্র জানাজানি হলে পাঁচু পাটোয়ারী বাড়ির মানিকের মামা দেলোয়ার হোসেন উল্টো ওই দুই ছাত্রীর অভিভাবকদের বিরুদ্ধে দরবেশপুর ইউনিয়ন পরিষদে একটি অভিযোগ দায়ের করেছে। ওই অভিযোগের আলোকে ২৬আগষ্ট ইউপি কার্যালয়ে গ্রাম আদালতে শুনানির দিন ধার্য করেছে।
সূত্রে জানা যায়, উপজেলার ৭নং দরবেশপুর ইউনিয়নের আইয়েনগর গ্রামের পাঁচু পাটোয়ারী বাড়ির দেলোয়ার হোসেনের ভাগীনা মোঃ মানিক (১৭) একই বাড়ির হাছিনা বেগমের বেগমের মেয়ে জুথি আক্তার জান্নাতকে ১৩ আগষ্ট বৃহস্পতিবার বিকেলে বিয়ের প্রলোভনে মোবাইল ফোনে পার্শ্ববর্তী সমিতির বাজারে যেতে বলে। এসময় জুথি একই বাড়ির চা দোকানদার আলমগীর হোসেনের মেয়ে তাসলিমাকে সাথে নিয়ে বাড়ি থেকে বের হয়ে যায়। পরে মানিক ২ছাত্রীকে সমিতির বাজার থেকে বালুয়া চৌমুহনী টু রামগঞ্জে হয়ে চাঁদপুর লঞ্চঘাটে গিয়ে লঞ্চযোগে ঢাকায় নিয়ে যায়। এরপর ঢাকা থেকে কুমিল্লা গিয়ে গৌরিপুরে মানিকের বড় মামা আনোয়ারের বাসায় মামানী পারভীনের কাছে রেখে বাড়িতে চলে আসে। পরে বিষয়টি জানাজানি হলে মানিকের মামানী পারভীন ওই দুই ছাত্রীকে নিয়ে ঢাকা মিরপুর ইষ্টার্ন হাউজিং বায়তুল আহম্মেদ ১৬/১২ একটি ভাড়াবাসায় তাদের আটকে রাখে। এদিকে জুথি ও তাসলিমার পরিবার তাদের এদিক সেদিক খুজতে গেলে বাড়ির দেলোয়ার হোসেন ওই দুই ছাত্রীর পিতা ও মায়ের কাছে কুমিল্লা সেনাবাহিনীর একটি ক্লাবে আটক আছে বলে সেখান থেকে তাদের ছাড়িয়ে আনতে পঞ্চাশ হাজার টাকা লাগবে বলে চাঁদা দাবি করে। এক পর্যায়ে এলাকার লোক দেলোয়ারকে এলাকার লোকজন চাপ সৃষ্টি করলে গত ২৩ আগষ্ট সোমবার তাসলিমাকে ঢাকা থেকে এনে তার গার্ডিয়ানের কাছে পৌছেঁ হস্তান্তর করলেও শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত জুথি আক্তার এখনো ঢাকার মিরপুর ওই স্থানে আটক রয়েছে।
জুথির মা হাছিনা বেগম জানান, মানিকের মামা দেলোয়ারের দাবিকৃত চাঁদার টাকা না দেওয়ার এখন পর্যন্ত আমার মেয়ে জুথিকে ঢাকার মিরপুরে আটকিয়ে রেখেছে। আমার ঘরে কোন পুরুষ মানুষ না থাকায় কি করবো বুঝে উঠতে পারছি না।
অভিযুক্ত মানিক ও তার মামা দেলোয়ার হোসেন জানান, এ বিষয়ে আমরা কিছু জানিনা। আমার বিরুদ্ধে যদি কোন অপরাদ প্রমানিত করতে পারে তাহলে যে কোন সাজা মাথা পেতে নেবো।
রামগঞ্জ থানা এএসআই শাহাআলম জানান, ছাত্রীর পিতা থানায় অভিযোগ করতে এসেছে। কিন্তু বিষয়টি স্থানীয় চেয়ারম্যান মিমাংশা করে দেওয়া আশ্বাস দেওয়ায় থানায় আর অভিযোগ হয়নি।

Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



web-ad

সর্বশেষ আপডেট





সম্পাদক ও প্রকাশক:: কামরুল ইসলাম কানন।
যোগাযোগ:: ০১৭১২৯৮৩৭৫১।
ইমেইল [email protected]

Developed BY Trustsoftbd