নোয়াখালীতে রেলওয়ের অনলাইন টিকেটে অতিরিক্ত চার্জ নেওয়ার অভিযোগ

গিয়াস উদ্দিন রনিঃ
বাংলাদেশ রেলওয়ের নোয়াখালী উপকূল এক্সপ্রেস’র অনলাইন টিকেটের নামে অতিরিক্ত চার্জ (অর্থ) নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।
বুধবার (২ সেপ্টেম্বর) নোয়াখালীর মাইজদীর আবদুর রহমান নামে এক গ্রাহক ঢাকা যাওয়ার জন্য নোয়াখালী উপকূল এক্সপ্রেসের দু’টি টিকেট অনলাইনের মাধ্যমে বিকাশে টাকা পেমেন্ট করে টিকেট কাটে। এতে দেখা যায় দুইটি টিকেটের মূল্য ২৩০ টাকা করে ৪৬০ টাকা নেওয়ার কথা থাকলে টিকেট বাবত ৫০০ টাকা বিকাশ একাউন্ট থেকে কেটে নেওয়া হয়।
কিন্তু অনলাইন টিকেটের প্রিন্ট কপিতে দেখা যায় দুইটি টিকেটের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৪৬০ টাকা। টিকেটে সরকারের ভ্যাটসহ অন্যান্য কলামে কোথাও অতিরিক্ত ৪০ টাকা কথা উল্লেখ করা হয়নি। ভুক্তভোগী গ্রাহকের প্রশ্ন অতিরিক্ত ৪০ টাকা গেল কোথায়? যেহেতু অতিরিক্ত টাকার কথা টিকেটে উল্লেখ নেই। অভিজ্ঞ মহলের প্রশ্ন বাকি টাকা গেল কোথায়?
এ বিষয়ে সোনাপুরের স্টেশন মাস্টার ফখরুল ইসলাম নোমান জানান, বিষয়টি আমার জানা নেই। হয়তো বিকাশও কেটে নিতে পারে। ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ভালো জানেন।
Share Button

সর্বশেষ আপডেট



» চাটখিলের রামনারায়নপুরে যুবদলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন

» আবারও দক্ষিণ আফ্রিকায় ডাকাতের গুলিতে নোয়াখালীর যুবক খুন

» রামগঞ্জে কুপ্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় বিধবার উপর হামলা

» এএসপি পদোন্নতিতে লিটনকে চাটখিলে সংবর্ধনা

» বেগমগঞ্জে মাদ্রাসায় শিশু শিক্ষার্থীকে বলৎকার, ২ কিশোর আটক

» চাটখিল ও সোনাইমুড়ীতে পূজামণ্ডপ পরিদর্শন ও অনুদান দিলেন জাহাঙ্গীর আলম 

» ধর্ষকদের জন্য আ’লীগের দরজা চিরতরে বন্ধ:ওবায়দুল কাদের

» বাহরাইনে সড়ক দূর্ঘটনায় সেনবাগের হিরন নিহত

» চাটখিলে ধর্ষক শরীফের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে জনতার মানববন্ধন

» গুলি ফুটিয়ে ভয় দেখিয়ে আরেক নারীকে ধর্ষন যুবলীগ নেতা শরীফের

ফেইসবুকে প্রিয় নোয়াখালী

সম্পাদক ও প্রকাশক:: কামরুল ইসলাম কানন।
যোগাযোগ:: ০১৭১২৯৮৩৭৫১।
ইমেইল [email protected]
Desing & Developed BY Trust soft bd
,

নোয়াখালীতে রেলওয়ের অনলাইন টিকেটে অতিরিক্ত চার্জ নেওয়ার অভিযোগ

গিয়াস উদ্দিন রনিঃ
বাংলাদেশ রেলওয়ের নোয়াখালী উপকূল এক্সপ্রেস’র অনলাইন টিকেটের নামে অতিরিক্ত চার্জ (অর্থ) নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে।
বুধবার (২ সেপ্টেম্বর) নোয়াখালীর মাইজদীর আবদুর রহমান নামে এক গ্রাহক ঢাকা যাওয়ার জন্য নোয়াখালী উপকূল এক্সপ্রেসের দু’টি টিকেট অনলাইনের মাধ্যমে বিকাশে টাকা পেমেন্ট করে টিকেট কাটে। এতে দেখা যায় দুইটি টিকেটের মূল্য ২৩০ টাকা করে ৪৬০ টাকা নেওয়ার কথা থাকলে টিকেট বাবত ৫০০ টাকা বিকাশ একাউন্ট থেকে কেটে নেওয়া হয়।
কিন্তু অনলাইন টিকেটের প্রিন্ট কপিতে দেখা যায় দুইটি টিকেটের মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৪৬০ টাকা। টিকেটে সরকারের ভ্যাটসহ অন্যান্য কলামে কোথাও অতিরিক্ত ৪০ টাকা কথা উল্লেখ করা হয়নি। ভুক্তভোগী গ্রাহকের প্রশ্ন অতিরিক্ত ৪০ টাকা গেল কোথায়? যেহেতু অতিরিক্ত টাকার কথা টিকেটে উল্লেখ নেই। অভিজ্ঞ মহলের প্রশ্ন বাকি টাকা গেল কোথায়?
এ বিষয়ে সোনাপুরের স্টেশন মাস্টার ফখরুল ইসলাম নোমান জানান, বিষয়টি আমার জানা নেই। হয়তো বিকাশও কেটে নিতে পারে। ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ভালো জানেন।
Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



web-ad

সর্বশেষ আপডেট





সম্পাদক ও প্রকাশক:: কামরুল ইসলাম কানন।
যোগাযোগ:: ০১৭১২৯৮৩৭৫১।
ইমেইল [email protected]

Developed BY Trustsoftbd