একজন আদর্শ শিক্ষকের কখনো মৃত্যু হয়না

স্মৃতিচারণ

মো.শরীফ উদ্দিন, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকেঃ

ব্যক্তির মৃত্যু হতে পারে, একজন আদর্শ শিক্ষকের কখনও মৃত্যু হয় না। শিক্ষক বেঁচে থাকে তাঁর অগনীত ছাত্র-ছাত্রীদের মনের মাঝে, কর্মের মাঝে, কৃতিত্বের মাঝে, সফলতার মাঝে। শিক্ষক মানে মূলত জীবনের পথ প্রদর্শক, অন্ধকার পথের আলোকবর্তিকা। ঠিক সে অর্থেই স্যার ছিলেন অন্ধকারের আলোকবর্তিকাই। বলছি সদ্য প্রয়াত মোঃ ইসহাক স্যারের কথা। আজকে স্যারের মৃত্যুর খবর পেয়ে নিজেকে সামলে নিতে খুবই কষ্ট হচ্ছে। কারণ অনেকের মত আমিও স্যারের খুব আদরের ছাত্র ছিলাম। আমার ভাই-বোনদের প্রাণপ্রিয় শিক্ষকদের তিনি ছিলেন একজন। আমার আব্বুর সাথে স্যারের সম্পর্ক ছিল খুবই ভালো। তাই স্কুল লেখা-পড়ার পাশাপাশি পরিবারের খোঁজ খবর নিতেন তিনি। তিনি শুধু শিক্ষকই নন একজন ভালো অভিভাবক ছিলেন। ১৯৯৯ সালের কথা। তিনি স্কুল জীবনে ছাত্রদের নামাজ শিখাইতেন এবং সবাইকে মসজিদে জামাতে নামাজ পড়াতেন। জামাত ছাড়া একক নামাজ পড়লে তাদেরকে (পূর্ণরায়) জামাতে নামাজ পড়তে উৎসাহিত করতেন।

এছাড়াও স্কুলের কোন ছাত্র-ছাত্রী যোহরের নামাজ আদায় করেনি তিনি ক্লাসে গিয়ে খবর নিতেন। স্ব-শিক্ষা, সু-শিক্ষা এবং ইসলামি শিক্ষা প্রদানের জন্য উনার মতো আদর্শ শিক্ষক প্রত্যেক স্কুলে থাকা প্রয়োজন।

আমি প্রবাসে আশার পর স্যারের বড় ছেলে ইয়াকুব হোসেন রাসেদ থেকে আমার খোঁজ খবর নিতেন। দীর্ঘ ১যুগের বেশি হবে স্যারের সাথে আমার দেখা হয়নি। দেশে যাওয়ার পর অনেক বার স্যারকে দেখতে যাবো ভেবেছিলাম, কিন্তু শেষ পর্যন্ত আর যাওয়া হয়নি। চলতি বছরের শেষের দিকে গিয়ে স্যারের সাথে দেখা করার স্বপ্ন ছিলো। স্বপ্ন স্বপ্নই থেকে গেল,আর দেখা হবেনা প্রিয় শিক্ষকের সাথে। কারন তিনি আজ (২৩অক্টোবর) শনিবার সকাল ৯টা ২০ মিনিটে চলে গেলেন না ফেরার দেশে। আমাদের প্রিয় গুরু, প্রিয় শিক্ষক, প্রিয় অভিভাবক, শাহাজাদ পুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন সিনিয়র শিক্ষক মো. ইসহাক মাষ্টারের মৃত্যুতে আমরা গভীরভাবে শোকাহত। মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা করি। রাব্বির হামহুমা কামা রব্বায়ানি সাগীরা। আল্লাহপাক যেন উনার জীবনের সকল গুনাহ মাফ করে জান্নাত নসিব করেন। এবং পরিবারের সদস্যদের ধৈর্য ধারণ করার তৌফিক দান করেন…আমিন।

মোঃ ইসহাক স্যার নোয়াখালী জেলার সেনবাগ থানার শ্রীপদ্দি গ্রামের ইসমাইল মাস্টার বাড়ির জালাল আহমেদের ছেলে। মৃত্যুকালে স্ত্রী, ৪ছেলে ১মেয়ে রেখে গেছেন। এই প্রিয় শিক্ষক ও সত্যিকারের এক জন অভিভাবক হিসেবে স্যারকে পেয়েছিলাম আমরা শাহাজাদ পুর উচ্চ বিদ্যালয়ে। শিক্ষার মান উন্নয়ন, শৃঙ্খল শিক্ষালয়ের রূপকার হিসেবে তাঁর অবদান অনস্বীকার্য। তিনি দঃ শ্রীপদ্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক ও সাবেক সভাপতি ছিলেন। এছাড়া সারাজীবন সামাজিক সেবামূলক সংগঠনের পাশে থেকে মানুষের সেবা করে গেছেন। আজ আমাদের মাঝে স্যার নেই। আছে, স্যারের স্মৃতি, স্যারের শাসন, স্যারের শিক্ষা।

আমরা জানি প্রত্যেক জীবনকেই মৃত্যুকে বরন করতে হবে। আর চিরন্তন সত্য মৃত্যু। তবে কিছু মৃত্যুর মৃত্যু হয় না, শুধু দেহটাই হয়তো আড়াল হয়। স্যারের মৃত্যুটাও শুধু দেহ থেকে প্রাণ ত্যাগ করেছে। কিন্তু তাঁর কর্ম, তাঁর শিক্ষা, তাঁর আদর্শ দেশে-বিদেশে, সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন পদে, বিভিন্ন যায়গায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা তাঁর ছাত্র-ছাত্রীদের কাছে স্মৃতি হয়ে থাকবে। মোঃ ইসহাক স্যার আমাদের এমনই এক জন যাঁকে ভালবাসায়, স্মৃতিতে, স্মরণে, আদর্শে ধারন করেই পথ চলছি, চলবো তাঁর গর্বিত ছাত্র হয়ে। স্যারের জন্য আবারও দোয়া করি আল্লাহপাক যেন উনার জীবনের সকল গুনাহ মাফ করে জান্নাত নসিব করেন…আমিন।

Share Button

সর্বশেষ আপডেট



» পরীক্ষার ২ দিন আগেই চলে গেলো আঁখি

» সেবা নিতে গিয়ে সোনাইমুড়ী উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও অফিস সহকারীর মারধরের শিকার প্রবাসী

» নোয়াখালীতে নির্বাচনে ‘বডি ওর্ন ক্যামেরা’ নিয়ে পুলিশ

» দক্ষিণ আফ্রিকায় সড়ক দূর্ঘটনায় যুবকের মৃত্যু

» নোয়াখালীর চাটখিলে অস্ত্র ও গুলিসহ গ্রেপ্তার-২

» কাতারে নোয়াখালী জাতীয়তাবাদী ফোরামের কমিটি

» নোয়াখালীতে গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যা, গ্রেপ্তার-৩

» মাদ্রাসাছাত্র চাটখিলের সাফওয়ান গুচ্ছের পর ঢাবির ‘ঘ’ ইউনিটেও প্রথম

» চাটখিলের সাহাপুরে নৌকার যৌগ্য কান্ডারী হতে পারেন সাজ্জাদ হায়দার সোহেল

» কোম্পানীগঞ্জে পুলিশের আটক বানিজ্যের অডিও ফাঁস,ওসি এসআই বদলী

ফেইসবুকে প্রিয় নোয়াখালী

সম্পাদক ও প্রকাশক:: কামরুল ইসলাম কানন।
যোগাযোগ:: ০১৭১২৯৮৩৭৫১।
ইমেইল kanon.press@gmail.com
Desing & Developed BY Trust soft bd
,

একজন আদর্শ শিক্ষকের কখনো মৃত্যু হয়না

স্মৃতিচারণ

মো.শরীফ উদ্দিন, দক্ষিণ আফ্রিকা থেকেঃ

ব্যক্তির মৃত্যু হতে পারে, একজন আদর্শ শিক্ষকের কখনও মৃত্যু হয় না। শিক্ষক বেঁচে থাকে তাঁর অগনীত ছাত্র-ছাত্রীদের মনের মাঝে, কর্মের মাঝে, কৃতিত্বের মাঝে, সফলতার মাঝে। শিক্ষক মানে মূলত জীবনের পথ প্রদর্শক, অন্ধকার পথের আলোকবর্তিকা। ঠিক সে অর্থেই স্যার ছিলেন অন্ধকারের আলোকবর্তিকাই। বলছি সদ্য প্রয়াত মোঃ ইসহাক স্যারের কথা। আজকে স্যারের মৃত্যুর খবর পেয়ে নিজেকে সামলে নিতে খুবই কষ্ট হচ্ছে। কারণ অনেকের মত আমিও স্যারের খুব আদরের ছাত্র ছিলাম। আমার ভাই-বোনদের প্রাণপ্রিয় শিক্ষকদের তিনি ছিলেন একজন। আমার আব্বুর সাথে স্যারের সম্পর্ক ছিল খুবই ভালো। তাই স্কুল লেখা-পড়ার পাশাপাশি পরিবারের খোঁজ খবর নিতেন তিনি। তিনি শুধু শিক্ষকই নন একজন ভালো অভিভাবক ছিলেন। ১৯৯৯ সালের কথা। তিনি স্কুল জীবনে ছাত্রদের নামাজ শিখাইতেন এবং সবাইকে মসজিদে জামাতে নামাজ পড়াতেন। জামাত ছাড়া একক নামাজ পড়লে তাদেরকে (পূর্ণরায়) জামাতে নামাজ পড়তে উৎসাহিত করতেন।

এছাড়াও স্কুলের কোন ছাত্র-ছাত্রী যোহরের নামাজ আদায় করেনি তিনি ক্লাসে গিয়ে খবর নিতেন। স্ব-শিক্ষা, সু-শিক্ষা এবং ইসলামি শিক্ষা প্রদানের জন্য উনার মতো আদর্শ শিক্ষক প্রত্যেক স্কুলে থাকা প্রয়োজন।

আমি প্রবাসে আশার পর স্যারের বড় ছেলে ইয়াকুব হোসেন রাসেদ থেকে আমার খোঁজ খবর নিতেন। দীর্ঘ ১যুগের বেশি হবে স্যারের সাথে আমার দেখা হয়নি। দেশে যাওয়ার পর অনেক বার স্যারকে দেখতে যাবো ভেবেছিলাম, কিন্তু শেষ পর্যন্ত আর যাওয়া হয়নি। চলতি বছরের শেষের দিকে গিয়ে স্যারের সাথে দেখা করার স্বপ্ন ছিলো। স্বপ্ন স্বপ্নই থেকে গেল,আর দেখা হবেনা প্রিয় শিক্ষকের সাথে। কারন তিনি আজ (২৩অক্টোবর) শনিবার সকাল ৯টা ২০ মিনিটে চলে গেলেন না ফেরার দেশে। আমাদের প্রিয় গুরু, প্রিয় শিক্ষক, প্রিয় অভিভাবক, শাহাজাদ পুর উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন সিনিয়র শিক্ষক মো. ইসহাক মাষ্টারের মৃত্যুতে আমরা গভীরভাবে শোকাহত। মরহুমের আত্মার মাগফেরাত কামনা করি। রাব্বির হামহুমা কামা রব্বায়ানি সাগীরা। আল্লাহপাক যেন উনার জীবনের সকল গুনাহ মাফ করে জান্নাত নসিব করেন। এবং পরিবারের সদস্যদের ধৈর্য ধারণ করার তৌফিক দান করেন…আমিন।

মোঃ ইসহাক স্যার নোয়াখালী জেলার সেনবাগ থানার শ্রীপদ্দি গ্রামের ইসমাইল মাস্টার বাড়ির জালাল আহমেদের ছেলে। মৃত্যুকালে স্ত্রী, ৪ছেলে ১মেয়ে রেখে গেছেন। এই প্রিয় শিক্ষক ও সত্যিকারের এক জন অভিভাবক হিসেবে স্যারকে পেয়েছিলাম আমরা শাহাজাদ পুর উচ্চ বিদ্যালয়ে। শিক্ষার মান উন্নয়ন, শৃঙ্খল শিক্ষালয়ের রূপকার হিসেবে তাঁর অবদান অনস্বীকার্য। তিনি দঃ শ্রীপদ্দি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক ও সাবেক সভাপতি ছিলেন। এছাড়া সারাজীবন সামাজিক সেবামূলক সংগঠনের পাশে থেকে মানুষের সেবা করে গেছেন। আজ আমাদের মাঝে স্যার নেই। আছে, স্যারের স্মৃতি, স্যারের শাসন, স্যারের শিক্ষা।

আমরা জানি প্রত্যেক জীবনকেই মৃত্যুকে বরন করতে হবে। আর চিরন্তন সত্য মৃত্যু। তবে কিছু মৃত্যুর মৃত্যু হয় না, শুধু দেহটাই হয়তো আড়াল হয়। স্যারের মৃত্যুটাও শুধু দেহ থেকে প্রাণ ত্যাগ করেছে। কিন্তু তাঁর কর্ম, তাঁর শিক্ষা, তাঁর আদর্শ দেশে-বিদেশে, সরকারি-বেসরকারি বিভিন্ন পদে, বিভিন্ন যায়গায় ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা তাঁর ছাত্র-ছাত্রীদের কাছে স্মৃতি হয়ে থাকবে। মোঃ ইসহাক স্যার আমাদের এমনই এক জন যাঁকে ভালবাসায়, স্মৃতিতে, স্মরণে, আদর্শে ধারন করেই পথ চলছি, চলবো তাঁর গর্বিত ছাত্র হয়ে। স্যারের জন্য আবারও দোয়া করি আল্লাহপাক যেন উনার জীবনের সকল গুনাহ মাফ করে জান্নাত নসিব করেন…আমিন।

Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



web-ad

সর্বশেষ আপডেট





সম্পাদক ও প্রকাশক:: কামরুল ইসলাম কানন।
যোগাযোগ:: ০১৭১২৯৮৩৭৫১।
ইমেইল kanon.press@gmail.com

Developed BY Trustsoftbd