ADS170638-2

ম্যাডাম আপনাকে বশ করার মন্ত্রটা কি

আনোয়ার বারী পিন্টু

বিএনপি ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহজাহানকে টেলিফোনে আমি বলেছিলাম, নামে বেনামে গজিয়ে উঠা প্রেসক্লাব কেন্দ্রীক সংগঠনগুলোর কারনে দলটির মূল সংগঠনগুলো ঢেকে যাচ্ছে। তিনি আমাকে বললেন, ‘সমস্যা নেই আমাদেরই তো প্রচার করছে তারা’। পাল্টা প্রশ্নে বললাম- তাহলে কেন্দ্রীয় দপ্তর থেকে যে একবার বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এইসব দলগুলোকে নিষিদ্ধ করা হলো সেই সিদ্ধান্ত কি ভুল ছিলো।

কথা আর বাড়ালাম না তবে কথা থেমে থাকেনি। ঠিক এর কয়দিন পরই ৯ আগস্ট ২০১৫ মোঃ শাহজাহান স্বাক্ষরিত একটি পত্রে সারা দেশে দলীয় গঠনতন্ত্র অনুযায়ী সম্মেলনের মাধ্যমে ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৫ তারিখের মধ্যে জেলা/মহানগরের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছিলো।

আমরা হতবাক হই, ঐ সময়ের মধ্যে সারা দেশে কমিটিতো দুরের কথা নির্দেশদাতা মোঃ শাহজাহান এর জেলা নোয়াখালী জেলা কমিটিও করতে পারেনি। শাহজাহান নিজেই সভাপতি হয়ে বসে আছেন দীর্ঘ সময়। চেয়ারপার্সন আপনি এর কোন জবাব নেননি।
আর তাই, এমন চিঠিতে বিস্ময় প্রকাশ করে তাৎক্ষনিক এর প্রতিবাদও জানিয়ে ময়মনসিংহ জেলা বিএনপির এক শীর্ষ নেতা বলেছিলেন ‘থানা, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ে কমিটি গঠনের জন্য চিঠিতে যার স্বাক্ষর রয়েছে তিনিও বিগত আন্দোলনে নিষ্ক্রিয় ছিলেন। তাই বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে আমি বলতে চাই, মোহাম্মদ শাহজাহানসহ কেন্দ্রে যারা নিস্ক্রিয় আছেন আগে তাদের সরান। পরে এ ধরনের নির্দেশনা দিলে আমরা খুশি হবো।’
আসুন এবার ভ্রমন করি বিএনপি গঠনতন্ত্র। ৬ ধারায় বলা আছে, ‘দলের জেলা কাউন্সিল প্রশাসনিক ও রাজনৈতিক জেলাভূক্ত প্রতিটি উপজেলা/থানার ও পৌরসভার নির্বাহী কমিটির সদস্যদের নিয়ে গঠিত হবে। দুই বছর মেয়াদে কাউন্সিলের সদস্যদের মধ্য থেকে একজন সভাপতি, সাতজন সহ-সভাপতি,একজন সাধারণ স¤পাদক,দুইজন যুগ্ন স¤পাদক,একজন সাংগঠনিক স¤পাদক,দুইজন সহ- সাংগঠনিক স¤পাদক, একজন প্রচার স¤পাদক, একজন দপ্তর স¤পাদক, একজন সহ-দপ্তর স¤পাদক, একজন সহ-প্রচার স¤পাদক ও একজন কোষাধ্যক্ষ সমন্বয়ে গঠিত ১৫১ জনের অনুর্দ্ধ একটি জেলা নির্বাহী কমিটি নির্বাচিত করবে। চেয়ারম্যানের পরামর্শক্রমে মহাসচিব জেলা কমিটির অনুমোদন দেবেন’।

অথচ, শাহাজান তার জেলায় ৭ বছর পর গত ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে কাউন্সিলের আয়োজন করলেও রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে কমিটি আর করা হয়নি। গঠনতন্ত্র মতে দুই বছর পর পর কাউন্সিল করার নির্দেশ থাকলেও গত সাত বছর শাহজাহান কেন কমিটি করেনি, কেন নিজ জেলা কমিটি করতে পারেনি এর কোন জবাব না দিয়েই শাহাজানরা বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আর সারা দেশে কমিটি গঠনের সাংগঠনিক দায়িত্বে। বড় বিস্ময় জাগে ম্যাডাম।

পাঠক আসুন এবার ¯াানীয় সরকার নির্বাচনের চেয়ারম্যান ভোটের দিকে তাকাই, কে চেয়ারম্যান প্রার্থী হবে- দলের সভাপতি, সেক্রেটারী ওয়ার্ড নেতারা নির্বাচিত করবে এটাই স্বাভাবিক, অথচ বিএনপি নতুন নিয়ম করেছে, ইউনিয়ন সভাপতি, সেক্রেটারী, সাংগঠনিক সম্পাদক, থানা সভাপতি ও সেক্রেটারী ও সাবেক এমপি মিলে মোট (৬ ভোট) যে পাবে সেই হবে ইউনিয়ন চেয়াম্যান প্রার্থী। প্রশ্ন হলো- প্রার্থী যদি দুইজন হয় তাহলে কি হবে। ম্যাডাম বলবেন কি, দলটিতে মূর্খতার একটা সীমা থাকা দরকার আছে কি। ধারনা করি, অফিস আমলারা, দলীয় মোড়লরা নিপুণ কৌশলে আপনাকে অন্ধকারে সত্যের আড়ালে রেখেছে। আপনার চতুর্দিকে অবাঞ্চিত শেওলার আস্তর পড়েছে।

ম্যাডাম আপনার জিবনীতে পড়েছি, স্বৈরাচার বিরোধী সংগ্রাম আপনি তখন মাঠের নতুন রাজনৈতিক কর্মী। বিবিসি বাংলাকে দেওয়া স্বাক্ষাতকারে আপনি বলেছিলেন, ‘সংলাপতো দুরের কথা, পদত্যাগ করে নির্বাচন দেওয়া ছাড়া এরশাদের সামনে আর কোন পথ খোলা নেই। এখন প্রশ্ন জাগে, দীর্ঘ পোড় খাওয়া ম্যাডাম আপনি কেন বোঝেন না? আপনি কি জানেন না বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটি ও স্থায়ী কমিটি যে পরিত্যক্ত হয়ে পড়েছে। নতুন নেতৃত্ব বাধাগ্রস্থ করে রেখেছে।

চিন্তিত হই, যখন ছাত্রদলের ব্যর্থরা যুবদলের কেন্দ্রীয় নেতা হয়, যুবদলের ব্যর্থরা আরেক ধাপ উপরে। আমান, নাজিম, এ্যানি, আ ন ম মিলন, শিরীন, রেহানা, পাপিয়ারা তাদের প্রাপ্য পায় না। ম্যাডাম কি হয়েছে, আপনার দৃড়তা, আপোষহীনতা কিভাবে রুদ্ধ হয়েছে, কিভাবে শিকল মেরেছে, এরা আপনাকে কোন মন্ত্রে বশ করেছে সেই মন্ত্রটা জানতে চাই।

(লেখক- জিঙ্গেল নির্মাতা ও সাধারণ সম্পাদক, বাংলা সাংস্কৃতিক জোট)।

Share Button

সর্বশেষ আপডেট



» একুশে পদক প্রাপ্ত গান্ধী আশ্রমের ঝর্ণা ধরা চৌধুরী আর নেই

» জাতীয় কাব শিশু প্রতিযোগীতায় সারাদেশে সেরা চাটখিলের নোমানী

» ৩ ঘন্টায়ও নিজেকে এমবিবিএস ডাক্তার প্রমান করকে না পেরে জেলে গেলেন সেনবাগের মামুন

» রামগঞ্জে প্রতিবন্ধী যুবতীকে ধষর্ন করে অন্তঃসত্বা

» বেগমগঞ্জ দুটি অপহরণ ও ধর্ষন মামলা আসামী হকার জাকিরকে গ্রেপ্তারের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন

» দঃ আফ্রিকায় মসজিদের টাকা ছিনতাইঃ ডাকাতদের গ্রেফতারে পুরস্কারের ঘোষণা

» চাটখিলে মসজিদের ভেতরে শিশু বলাৎকার, মুয়াজ্জিন আটক

» রামগঞ্জে পুলিশ অফিসারের উদ্যোগে আলোকিত একই পরিবারের ৪ প্রতিবন্ধী

» চাটখিলে রক্তদাতা দিবসে খিলপাড়া ব্লাড ডোনেট ক্লাবের বর্ণাঢ্য সাইকেল শোভাযাত্রা

» নোয়াখালীতে আদালত থেকে হাতকড়াসহ দৌড়ে পালাল মাদক মামলার আসামী

ফেইসবুকে প্রিয় নোয়াখালী

add pn
সম্পাদক ও প্রকাশক:: কামরুল ইসলাম কানন।
যোগাযোগ:: ০১৭১২৯৮৩৭৫১।
ইমেইল [email protected]
Desing & Developed BY Trust soft bd
ADS170638-2
,

ম্যাডাম আপনাকে বশ করার মন্ত্রটা কি

আনোয়ার বারী পিন্টু

বিএনপি ভাইস চেয়ারম্যান মোহাম্মদ শাহজাহানকে টেলিফোনে আমি বলেছিলাম, নামে বেনামে গজিয়ে উঠা প্রেসক্লাব কেন্দ্রীক সংগঠনগুলোর কারনে দলটির মূল সংগঠনগুলো ঢেকে যাচ্ছে। তিনি আমাকে বললেন, ‘সমস্যা নেই আমাদেরই তো প্রচার করছে তারা’। পাল্টা প্রশ্নে বললাম- তাহলে কেন্দ্রীয় দপ্তর থেকে যে একবার বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে এইসব দলগুলোকে নিষিদ্ধ করা হলো সেই সিদ্ধান্ত কি ভুল ছিলো।

কথা আর বাড়ালাম না তবে কথা থেমে থাকেনি। ঠিক এর কয়দিন পরই ৯ আগস্ট ২০১৫ মোঃ শাহজাহান স্বাক্ষরিত একটি পত্রে সারা দেশে দলীয় গঠনতন্ত্র অনুযায়ী সম্মেলনের মাধ্যমে ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০১৫ তারিখের মধ্যে জেলা/মহানগরের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছিলো।

আমরা হতবাক হই, ঐ সময়ের মধ্যে সারা দেশে কমিটিতো দুরের কথা নির্দেশদাতা মোঃ শাহজাহান এর জেলা নোয়াখালী জেলা কমিটিও করতে পারেনি। শাহজাহান নিজেই সভাপতি হয়ে বসে আছেন দীর্ঘ সময়। চেয়ারপার্সন আপনি এর কোন জবাব নেননি।
আর তাই, এমন চিঠিতে বিস্ময় প্রকাশ করে তাৎক্ষনিক এর প্রতিবাদও জানিয়ে ময়মনসিংহ জেলা বিএনপির এক শীর্ষ নেতা বলেছিলেন ‘থানা, ইউনিয়ন ও ওয়ার্ড পর্যায়ে কমিটি গঠনের জন্য চিঠিতে যার স্বাক্ষর রয়েছে তিনিও বিগত আন্দোলনে নিষ্ক্রিয় ছিলেন। তাই বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে আমি বলতে চাই, মোহাম্মদ শাহজাহানসহ কেন্দ্রে যারা নিস্ক্রিয় আছেন আগে তাদের সরান। পরে এ ধরনের নির্দেশনা দিলে আমরা খুশি হবো।’
আসুন এবার ভ্রমন করি বিএনপি গঠনতন্ত্র। ৬ ধারায় বলা আছে, ‘দলের জেলা কাউন্সিল প্রশাসনিক ও রাজনৈতিক জেলাভূক্ত প্রতিটি উপজেলা/থানার ও পৌরসভার নির্বাহী কমিটির সদস্যদের নিয়ে গঠিত হবে। দুই বছর মেয়াদে কাউন্সিলের সদস্যদের মধ্য থেকে একজন সভাপতি, সাতজন সহ-সভাপতি,একজন সাধারণ স¤পাদক,দুইজন যুগ্ন স¤পাদক,একজন সাংগঠনিক স¤পাদক,দুইজন সহ- সাংগঠনিক স¤পাদক, একজন প্রচার স¤পাদক, একজন দপ্তর স¤পাদক, একজন সহ-দপ্তর স¤পাদক, একজন সহ-প্রচার স¤পাদক ও একজন কোষাধ্যক্ষ সমন্বয়ে গঠিত ১৫১ জনের অনুর্দ্ধ একটি জেলা নির্বাহী কমিটি নির্বাচিত করবে। চেয়ারম্যানের পরামর্শক্রমে মহাসচিব জেলা কমিটির অনুমোদন দেবেন’।

অথচ, শাহাজান তার জেলায় ৭ বছর পর গত ডিসেম্বরের শেষ সপ্তাহে কাউন্সিলের আয়োজন করলেও রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে কমিটি আর করা হয়নি। গঠনতন্ত্র মতে দুই বছর পর পর কাউন্সিল করার নির্দেশ থাকলেও গত সাত বছর শাহজাহান কেন কমিটি করেনি, কেন নিজ জেলা কমিটি করতে পারেনি এর কোন জবাব না দিয়েই শাহাজানরা বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আর সারা দেশে কমিটি গঠনের সাংগঠনিক দায়িত্বে। বড় বিস্ময় জাগে ম্যাডাম।

পাঠক আসুন এবার ¯াানীয় সরকার নির্বাচনের চেয়ারম্যান ভোটের দিকে তাকাই, কে চেয়ারম্যান প্রার্থী হবে- দলের সভাপতি, সেক্রেটারী ওয়ার্ড নেতারা নির্বাচিত করবে এটাই স্বাভাবিক, অথচ বিএনপি নতুন নিয়ম করেছে, ইউনিয়ন সভাপতি, সেক্রেটারী, সাংগঠনিক সম্পাদক, থানা সভাপতি ও সেক্রেটারী ও সাবেক এমপি মিলে মোট (৬ ভোট) যে পাবে সেই হবে ইউনিয়ন চেয়াম্যান প্রার্থী। প্রশ্ন হলো- প্রার্থী যদি দুইজন হয় তাহলে কি হবে। ম্যাডাম বলবেন কি, দলটিতে মূর্খতার একটা সীমা থাকা দরকার আছে কি। ধারনা করি, অফিস আমলারা, দলীয় মোড়লরা নিপুণ কৌশলে আপনাকে অন্ধকারে সত্যের আড়ালে রেখেছে। আপনার চতুর্দিকে অবাঞ্চিত শেওলার আস্তর পড়েছে।

ম্যাডাম আপনার জিবনীতে পড়েছি, স্বৈরাচার বিরোধী সংগ্রাম আপনি তখন মাঠের নতুন রাজনৈতিক কর্মী। বিবিসি বাংলাকে দেওয়া স্বাক্ষাতকারে আপনি বলেছিলেন, ‘সংলাপতো দুরের কথা, পদত্যাগ করে নির্বাচন দেওয়া ছাড়া এরশাদের সামনে আর কোন পথ খোলা নেই। এখন প্রশ্ন জাগে, দীর্ঘ পোড় খাওয়া ম্যাডাম আপনি কেন বোঝেন না? আপনি কি জানেন না বিএনপি জাতীয় নির্বাহী কমিটি ও স্থায়ী কমিটি যে পরিত্যক্ত হয়ে পড়েছে। নতুন নেতৃত্ব বাধাগ্রস্থ করে রেখেছে।

চিন্তিত হই, যখন ছাত্রদলের ব্যর্থরা যুবদলের কেন্দ্রীয় নেতা হয়, যুবদলের ব্যর্থরা আরেক ধাপ উপরে। আমান, নাজিম, এ্যানি, আ ন ম মিলন, শিরীন, রেহানা, পাপিয়ারা তাদের প্রাপ্য পায় না। ম্যাডাম কি হয়েছে, আপনার দৃড়তা, আপোষহীনতা কিভাবে রুদ্ধ হয়েছে, কিভাবে শিকল মেরেছে, এরা আপনাকে কোন মন্ত্রে বশ করেছে সেই মন্ত্রটা জানতে চাই।

(লেখক- জিঙ্গেল নির্মাতা ও সাধারণ সম্পাদক, বাংলা সাংস্কৃতিক জোট)।

Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



web-ad

সর্বশেষ আপডেট





সম্পাদক ও প্রকাশক:: কামরুল ইসলাম কানন।
যোগাযোগ:: ০১৭১২৯৮৩৭৫১।
ইমেইল [email protected]

Developed BY Trustsoftbd