ADS170638-2

অনেক অপকর্মের হোতা অধ্যক্ষ সিরাজ

প্রিয় নোয়াখালী ডেস্কঃ

ফেনীতে মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টায় আলোচিত সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ-দৌলার বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম, দুর্নীতি ও অপরাধের অভিযোগ পাওয়া গেছে। অধ্যক্ষ সিরাজকে এর আগে একটি শিশুকে বলাৎকারের অভিযোগে ফেনী সদর উপজেলার ধলিয়া ইউনিয়নের সালামতিয়া মাদ্রাসা থেকে বহিষ্কার করা হয়। এ ছাড়া অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে নোয়াখালীর বসুরহাটের রঙ্গমালা ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসা থেকে চাকরিচ্যুত করা হয় তাকে। তার বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তা ও চেক জালিয়াতিসহ সোনাগাজী মডেল থানায় ছয়টি মামলা রয়েছে বলে জানা গেছে।
অন্যদিকে সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসায় যোগদানের পর সিরাজ-উদ-দৌলা প্রতিষ্ঠানটিকে অনিয়ম, দুর্নীতি ও যৌন হেনস্তার আখড়ায় পরিণত করেন বলে এলাকাবাসীর অভিযোগ। তার এসব অপরাধের বিষয়ে বিভিন্ন সময়ে অভিভাবকরা অভিযোগ জানালেও প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা কমিটির কয়েকজন প্রভাবশালী সদস্য তাকে বাঁচিয়ে দেন বলে অভিযোগ উঠেছে।
অনুসন্ধানে জানা যায়, দুই দশক আগে সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসায় ভাইস প্রিন্সিপাল পদে নিয়োগ পান সোনাগাজী উপজেলার আমিরাবাদের মৃত কলিম উল্যার ছেলে সিরাজ-উদ-দৌলা। প্রয়োজনীয় যোগ্যতা না থাকায় জাল কাগজপত্র বানিয়ে তিনি এ প্রতিষ্ঠানে ঢোকেন বলে এর আগে অভিযোগ উঠেছিল। এ নিয়ে চার বছর আগে মাদ্রাসার তখনকার ব্যবস্থাপনা কমিটির অভিভাবক সদস্য এবং সোনাগাজী পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর আবদুল মান্নান শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে সংশ্লিষ্ট শাখার ডিজি বরাবর একটি অভিযোগ জমা দেন। ওই অভিযোগে বলা হয়, ফাজিল মাদ্রাসায় নিয়োগ পেতে হলে আলিম মাদ্রাসায় চাকরির ন্যূনতম ১২ বছরের অভিজ্ঞতা থাকতে হয়। অথচ সিরাজ তার আগেকার দুটি দাখিল মাদ্রাসায় চাকরি করার ভুয়া অভিজ্ঞতা সনদ জমা দেন। ওই দুটি মাদ্রাসা অদ্যাবধি আলিম মাদ্রাসায় উত্তীর্ণ হতে পারেনি। এ ছাড়া অধ্যক্ষ সিরাজ এর আগে বসুরহাটের রঙ্গমালা মাদ্রাসা থেকে অনিয়ম ও দুর্নীতি এবং সালামতিয়া মাদ্রাসা থেকে শিশু বলাৎকারের অভিযোগে চাকরি হারান বলে ওই অভিযোগে উল্লেখ করা হয়।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার এক শিক্ষার্থীর অভিভাবক দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘এই মাদ্রাসায় নিয়োগ পাওয়ার পর সিরাজ সুবিধাবাদীদের সঙ্গে নিয়ে অনিয়মের মহোৎসবে মেতে ওঠেন। রাজনৈতিক প্রভাবশালীদের সঙ্গে সখ্য গড়ে তোলেন তিনি। মাদ্রাসায় বখাটেদের নিয়ে একটি বাহিনীও গড়ে তোলেন। নানা সময়ে মাদ্রাসার বিভিন্ন তহবিলের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠলেও কাজের কাজ কিছুই হয়নি। এ ছাড়া এর আগেও অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে একাধিক যৌন হেনস্তার অভিযোগ উঠলেও প্রভাবশালীদের হস্তক্ষেপে তার মীমাংসা হয়ে যায়।’
অন্যদিকে সোনাগাজী ফাজিল মাদ্রাসায় অধ্যক্ষ থাকা অবস্থায় উম্মুল কুরা মাদ্রাসা নামে ফেনী শহরে একটি প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলেন সিরাজ। ওই প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারহোল্ডারদের কাছ থেকে নেওয়া বিপুল পরিমাণ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছিল সিরাজের বিরুদ্ধে। তাদের মধ্যে চারজন শেয়ারহোল্ডার তার বিরুদ্ধে চেক জালিয়াতির মামলা করেন।
সোনাগাজী ফাজিল মাদ্রাসার নিয়ন্ত্রণে দীর্ঘদিন ধরে একাধিক গ্রুপ সক্রিয় ছিল। কিন্তু গত ছয় মাস ধরে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রুহুল আমিন এ প্রতিষ্ঠানের সহসভাপতির দায়িত্বে আছেন। অধ্যক্ষের কাছ থেকে সুবিধা নিয়ে তার নানা অপকর্ম ঢাকার অভিযোগ উঠেছে রুহুল আমিনের বিরুদ্ধে।
উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর শেখ আবদুল হালিম মামুন বলেন, ‘অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগের তথ্য এর আগে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক এনামুল করিমকে জানিয়েছি। কিন্তু উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতিসহ একটি গ্রুপ তাকে রক্ষা করতে সব সময় মরিয়া হয়ে অবস্থান নেন।’
তবে অভিযোগ অস্বীকার করে রুহুল আমিন বলেন, ‘কোনো ধরনের অপরাধকে আমরা প্রশ্রয় দিই না। রাফিকে আগুন দেওয়ার ঘটনায় আমি ন্যায়বিচার চাই। দোষী যে-ই হোক না কেন আমি প্রকৃত দোষীর সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করছি।’
সোনাগাজী মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, ‘অধ্যক্ষ সিরাজের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তা ও চেক জালিয়াতিসহ ছয়টি মামলা রয়েছে।’

নিউজের সূত্রঃ দেশ রুপান্তর।

Share Button

সর্বশেষ আপডেট



» চাটখিলে খিলপাড়া ইউনিয়ন ছাত্রদল সভাপতি শাহ পরান গ্রেফতার

» সোনাইমুড়ীতে দুটি যাত্রীবাহী বাসের সংঘর্ষে ৩০জন আহত

» রামগঞ্জে ৫ম শ্রেণির শিশু শিক্ষার্থীকে ধর্ষন, যুবক আটক

» চাটখিলে বিশ্ব জনসংখ্যা দিবসে নোয়াখলা ইউপি সেরা হিসেবে পুরস্কৃত

» সুবর্ণচরে চেয়ারম্যানের কেয়ারটেকারের রহস্যজনক মৃত্যু, সাংবাদিকের ওপর হামলা

» সোনাইমুড়ীতে ৩য় শ্রেণির ছাত্রীকে যৌন হয়রানীর অভিযোগে শিক্ষক গ্রেফতার

» চবিতে ‘নোয়াখালী জেলা ছাত্রকল্যাণ সমিতি’র সপ্তাহব্যাপী সদস্য সংগ্রহ চলছে

» ঘাতক সিরাজকে দেখে জ্ঞান হারালেন নুসরাতের মা

» ৭ মিনিটে ইউএনও হাজির, ২০০ টাকার ডিফোডিন ৪০০টাকা

» চাটখিলের খিলপাড়ার সেই পোস্টমাস্টার নুর করিম দুদকের ৩ দিনের রিমান্ডে

ফেইসবুকে প্রিয় নোয়াখালী

add pn
সম্পাদক ও প্রকাশক:: কামরুল ইসলাম কানন।
যোগাযোগ:: ০১৭১২৯৮৩৭৫১।
ইমেইল [email protected]
Desing & Developed BY Trust soft bd
ADS170638-2
,

অনেক অপকর্মের হোতা অধ্যক্ষ সিরাজ

প্রিয় নোয়াখালী ডেস্কঃ

ফেনীতে মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফিকে গায়ে কেরোসিন ঢেলে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টায় আলোচিত সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার অধ্যক্ষ সিরাজ-উদ-দৌলার বিরুদ্ধে নানা অনিয়ম, দুর্নীতি ও অপরাধের অভিযোগ পাওয়া গেছে। অধ্যক্ষ সিরাজকে এর আগে একটি শিশুকে বলাৎকারের অভিযোগে ফেনী সদর উপজেলার ধলিয়া ইউনিয়নের সালামতিয়া মাদ্রাসা থেকে বহিষ্কার করা হয়। এ ছাড়া অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে নোয়াখালীর বসুরহাটের রঙ্গমালা ইসলামিয়া দাখিল মাদ্রাসা থেকে চাকরিচ্যুত করা হয় তাকে। তার বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তা ও চেক জালিয়াতিসহ সোনাগাজী মডেল থানায় ছয়টি মামলা রয়েছে বলে জানা গেছে।
অন্যদিকে সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসায় যোগদানের পর সিরাজ-উদ-দৌলা প্রতিষ্ঠানটিকে অনিয়ম, দুর্নীতি ও যৌন হেনস্তার আখড়ায় পরিণত করেন বলে এলাকাবাসীর অভিযোগ। তার এসব অপরাধের বিষয়ে বিভিন্ন সময়ে অভিভাবকরা অভিযোগ জানালেও প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনা কমিটির কয়েকজন প্রভাবশালী সদস্য তাকে বাঁচিয়ে দেন বলে অভিযোগ উঠেছে।
অনুসন্ধানে জানা যায়, দুই দশক আগে সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসায় ভাইস প্রিন্সিপাল পদে নিয়োগ পান সোনাগাজী উপজেলার আমিরাবাদের মৃত কলিম উল্যার ছেলে সিরাজ-উদ-দৌলা। প্রয়োজনীয় যোগ্যতা না থাকায় জাল কাগজপত্র বানিয়ে তিনি এ প্রতিষ্ঠানে ঢোকেন বলে এর আগে অভিযোগ উঠেছিল। এ নিয়ে চার বছর আগে মাদ্রাসার তখনকার ব্যবস্থাপনা কমিটির অভিভাবক সদস্য এবং সোনাগাজী পৌরসভার ২ নম্বর ওয়ার্ডের সাবেক কাউন্সিলর আবদুল মান্নান শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে সংশ্লিষ্ট শাখার ডিজি বরাবর একটি অভিযোগ জমা দেন। ওই অভিযোগে বলা হয়, ফাজিল মাদ্রাসায় নিয়োগ পেতে হলে আলিম মাদ্রাসায় চাকরির ন্যূনতম ১২ বছরের অভিজ্ঞতা থাকতে হয়। অথচ সিরাজ তার আগেকার দুটি দাখিল মাদ্রাসায় চাকরি করার ভুয়া অভিজ্ঞতা সনদ জমা দেন। ওই দুটি মাদ্রাসা অদ্যাবধি আলিম মাদ্রাসায় উত্তীর্ণ হতে পারেনি। এ ছাড়া অধ্যক্ষ সিরাজ এর আগে বসুরহাটের রঙ্গমালা মাদ্রাসা থেকে অনিয়ম ও দুর্নীতি এবং সালামতিয়া মাদ্রাসা থেকে শিশু বলাৎকারের অভিযোগে চাকরি হারান বলে ওই অভিযোগে উল্লেখ করা হয়।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে সোনাগাজী ইসলামিয়া সিনিয়র ফাজিল মাদ্রাসার এক শিক্ষার্থীর অভিভাবক দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘এই মাদ্রাসায় নিয়োগ পাওয়ার পর সিরাজ সুবিধাবাদীদের সঙ্গে নিয়ে অনিয়মের মহোৎসবে মেতে ওঠেন। রাজনৈতিক প্রভাবশালীদের সঙ্গে সখ্য গড়ে তোলেন তিনি। মাদ্রাসায় বখাটেদের নিয়ে একটি বাহিনীও গড়ে তোলেন। নানা সময়ে মাদ্রাসার বিভিন্ন তহবিলের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠলেও কাজের কাজ কিছুই হয়নি। এ ছাড়া এর আগেও অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে একাধিক যৌন হেনস্তার অভিযোগ উঠলেও প্রভাবশালীদের হস্তক্ষেপে তার মীমাংসা হয়ে যায়।’
অন্যদিকে সোনাগাজী ফাজিল মাদ্রাসায় অধ্যক্ষ থাকা অবস্থায় উম্মুল কুরা মাদ্রাসা নামে ফেনী শহরে একটি প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলেন সিরাজ। ওই প্রতিষ্ঠানটির শেয়ারহোল্ডারদের কাছ থেকে নেওয়া বিপুল পরিমাণ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছিল সিরাজের বিরুদ্ধে। তাদের মধ্যে চারজন শেয়ারহোল্ডার তার বিরুদ্ধে চেক জালিয়াতির মামলা করেন।
সোনাগাজী ফাজিল মাদ্রাসার নিয়ন্ত্রণে দীর্ঘদিন ধরে একাধিক গ্রুপ সক্রিয় ছিল। কিন্তু গত ছয় মাস ধরে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি রুহুল আমিন এ প্রতিষ্ঠানের সহসভাপতির দায়িত্বে আছেন। অধ্যক্ষের কাছ থেকে সুবিধা নিয়ে তার নানা অপকর্ম ঢাকার অভিযোগ উঠেছে রুহুল আমিনের বিরুদ্ধে।
উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ৭ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর শেখ আবদুল হালিম মামুন বলেন, ‘অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগের তথ্য এর আগে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক এনামুল করিমকে জানিয়েছি। কিন্তু উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতিসহ একটি গ্রুপ তাকে রক্ষা করতে সব সময় মরিয়া হয়ে অবস্থান নেন।’
তবে অভিযোগ অস্বীকার করে রুহুল আমিন বলেন, ‘কোনো ধরনের অপরাধকে আমরা প্রশ্রয় দিই না। রাফিকে আগুন দেওয়ার ঘটনায় আমি ন্যায়বিচার চাই। দোষী যে-ই হোক না কেন আমি প্রকৃত দোষীর সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করছি।’
সোনাগাজী মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মোয়াজ্জেম হোসেন বলেন, ‘অধ্যক্ষ সিরাজের বিরুদ্ধে যৌন হেনস্তা ও চেক জালিয়াতিসহ ছয়টি মামলা রয়েছে।’

নিউজের সূত্রঃ দেশ রুপান্তর।

Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



web-ad

সর্বশেষ আপডেট





সম্পাদক ও প্রকাশক:: কামরুল ইসলাম কানন।
যোগাযোগ:: ০১৭১২৯৮৩৭৫১।
ইমেইল [email protected]

Developed BY Trustsoftbd