ফেনীতে ভুমি-খেকো জসিমের বিরুদ্ধে মানববন্ধন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট,ফেনীঃ
ফেনীর সোনাগাজীর থাক-খোয়াজের লামছি মৌজায় জোরারগঞ্জের ভূমি-খেকো জামায়াত নেতা জসিম কর্তৃক স্থানীয় কৃষকদের ৭০ একর জমি জবরদখল করে কথিত মৎস্য প্রকল্প করার অভিযোগ পাওয়া গেছে, জমি জবর-দখল কারীদের বিচারের আওতায় এনে প্রকৃত মালিকদের জমি বুজিয়ে দেয়ার দাবীতে “সচেতন নাগরিক ও ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার”র ব্যানারে ফেনী শহীদ মিনার চত্বরে মানববন্ধন হয়েছে, এছাড়া জমি জবরদখলকারীদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় জামায়াত নেতা জসিম কর্তৃক সোনাগাজীর তিন যুবলীগ নেতার নামে মিথ্যা মামলা দাখিল করে হয়রানি ও সম্মানহানী করা হচ্ছে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে।
অনুসন্ধানে জানা গেছে, জোরারগঞ্জের চিহ্নিত জামায়াত নেতা জসিম উদ্দিন সোনাগাজী পৌরসভার কাউন্সিলর শেখ মামুনের ভায়রা ভাই, ফেনী-৩ (সোনাগাজী- দাগনভূঞাঁ) আসনের সাবেক স্বতন্ত্র সাংসদ হাজী রহিমুল্লাহ ভয় ভীতি ও হুমকি ধুমকি দিয়ে থাক খোয়াজের লামছি মৌজায় বেশ কিছু জমি জবর-দখল করেছিলো, পরে স্থানীয় আওয়ামীগের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়ার ফলে এলাকায় কোনঠাসা হয়ে পড়ে সাংসদ হাজী রহিমুল্লাহ, এক পর্যায় সেখান থেকে জবর-দখল করা কিছু জমি সম্পূর্ণ বেআইনী ভাবে ইজারা নেয় জামায়াত নেতা জসিম, কথিত ইজারা নিয়ে সে আসপাশের আরো কিছু জমি দখল করে মৎস্য চাষ প্রকল্পের কাজ শুরু করে।
জমির প্রকৃত মালীকরা প্রতিবাদ করলে সোনাগাজীর এক প্রভাবশালী আওয়ামীলীগ নেতা সহ জমির মালিকদের খুন গুম ও মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে দেয়ার ভয়ভীতি দেখিয়ে তাড়িয়ে দেয়, প্রকৃত ভূমি মালিকরা ফেনীর শহীদ মিনার চত্বরে মানববন্ধন করে ভূমি খেকো জামায়াত নেতার বিচার ও জমি ফেরৎ পাওয়ার দাবী জানান।
জামায়াত নেতা জসিমের জবর দখল করা জমিনের মূল মালিকগন হলেনঃ মেজর (অব) সোলায়মান, ৭নং সোনাগাজী ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক রুমন, কাশ্মীরবাজার নিবাসী বীরমুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ইসমাঈল হোসেন, চরলামছি নিবাসী সাবেদ আলী,
ভোয়াগ গ্রামের নিবাসী নুরুল হুদা, ভৈরব চৌধুরী বাজার এলাকার গিয়াস উদ্দিন, সোনাপুর নিবাসী ভোলা মিয়া, একই গ্রামের নাসির উদ্দিন এবং তিনবাড়িয়া নিবাসী কালামিয়া প্রমূখ।
বর্তমানে আশপাশের আরো বেশকিছু জমি জামায়াত নেতা জসিম সোনাগাজীর স্থানীয় এক প্রভাবশালী আওয়ামীলীগ নেতার ইন্ধনে জবর দখল করতে মরিয়া।

এবিষয়ে জানতে চাইলে আমিরাবাদ ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আয়ুব নবী ফরহাদ এই প্রতিবেদক কে জানান, জোরারগঞ্জের জামায়াত নেতা জসিম উদ্দিন আমাদের নামে চাঁদাবাজির মিথ্যা অভিযোগ করেছে, এই অভিযোগের কোন ভিত্তি নেই, স্থানীয় এক আওয়ামীলীগ নেতার ইন্ধনেই এই মামলাটি করা হয়েছে, যদি এই অভিযোগের বিন্দুমাত্র সত্যতা থাকে তাহলে প্রকাশ্যে ঘোষনা দিলাম রাজনীতি এবং সোনাগাজীর মাটি দু’টোই ছেডে চলে যাবো।

সোনাগাজী উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক (সাবেক) ইফতেখার হোসেন খোন্দকার বলেন, জুলুমবাজ ভূমি-খেকোরা আমাদের নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে আমাদের সম্মানহানী সহ অযথা হয়রানি করছে, আমরা প্রকৃত জমি মালিকদের পক্ষে কথা বলায় তাদের গায়ে লেগেছে, এখন আমারা চাঁদা দাবী করছি বলে অপ-প্রচার চালাচ্ছে, এছাড়া সত্য একদিন প্রকাশ হবেই এবং তার সাথে ভূমি-খেকোদের পতন ও প্রকৃত মালিকরা তাদের জমি বুজে পাবে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

স্থানীয় বাসিন্দা মেজর (অবঃ) সোলায়মান বলেন, আমাদের প্রকৃত মালীকানার জমি গুলো এক শ্রেণীর ভূমি দস্যুরা দখল করে রেখেছে, আমরা এর থেকে পরিত্রান চাই, এসব অন্যায়কারী ও জুলুমবাজদের হাত থেকে বাঁচতে চাই।

Share Button

সর্বশেষ আপডেট



» চাটখিলের সন্তান বাঁধনের জিপিএ ফাইভ অর্জন

» নারীর লাশ ঝুলছে, সন্তানের পানিতে,স্বামী পলাতক

» সোনাইমুড়ী প্রেসক্লাবের নুতন সভাপতি খোরশেদ আলম সাধারণ সম্পাদক বেলাল হোছাইন ভূঁইয়া

» করোনা দুর্যোগে নোয়াখালীর ৩০ হাজার মানুষের পাশে প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারী জাহাঙ্গীর আলম

» বেগমগঞ্জে ঈদের রাতে আ,লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ সহ আহত ৯ গ্রেফতার ৩

» নোয়াখালী সিভিল সার্জন অফিসের ফেসবুক আইডি হ্যাক

» চাটখিলে বাবার বাড়ী থেকে ১ সন্তানের জননীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

» করোনা উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তির কয়েক ঘন্টা পরে মারা গেলেন বেগমগঞ্জের একজন

» স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘উইফরইউ পাঠশালা’র ১২০ শিক্ষার্থী পেল ঈদ উপহার ও নগদ অর্থ

» নোয়াখালীতে নুতন আক্রান্ত ৭৭, চাটখিল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জরুরী বিভাগ বাদে সব বন্ধ

ফেইসবুকে প্রিয় নোয়াখালী

সম্পাদক ও প্রকাশক:: কামরুল ইসলাম কানন।
যোগাযোগ:: ০১৭১২৯৮৩৭৫১।
ইমেইল [email protected]
Desing & Developed BY Trust soft bd
,

ফেনীতে ভুমি-খেকো জসিমের বিরুদ্ধে মানববন্ধন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট,ফেনীঃ
ফেনীর সোনাগাজীর থাক-খোয়াজের লামছি মৌজায় জোরারগঞ্জের ভূমি-খেকো জামায়াত নেতা জসিম কর্তৃক স্থানীয় কৃষকদের ৭০ একর জমি জবরদখল করে কথিত মৎস্য প্রকল্প করার অভিযোগ পাওয়া গেছে, জমি জবর-দখল কারীদের বিচারের আওতায় এনে প্রকৃত মালিকদের জমি বুজিয়ে দেয়ার দাবীতে “সচেতন নাগরিক ও ক্ষতিগ্রস্থ পরিবার”র ব্যানারে ফেনী শহীদ মিনার চত্বরে মানববন্ধন হয়েছে, এছাড়া জমি জবরদখলকারীদের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করায় জামায়াত নেতা জসিম কর্তৃক সোনাগাজীর তিন যুবলীগ নেতার নামে মিথ্যা মামলা দাখিল করে হয়রানি ও সম্মানহানী করা হচ্ছে বলে স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে।
অনুসন্ধানে জানা গেছে, জোরারগঞ্জের চিহ্নিত জামায়াত নেতা জসিম উদ্দিন সোনাগাজী পৌরসভার কাউন্সিলর শেখ মামুনের ভায়রা ভাই, ফেনী-৩ (সোনাগাজী- দাগনভূঞাঁ) আসনের সাবেক স্বতন্ত্র সাংসদ হাজী রহিমুল্লাহ ভয় ভীতি ও হুমকি ধুমকি দিয়ে থাক খোয়াজের লামছি মৌজায় বেশ কিছু জমি জবর-দখল করেছিলো, পরে স্থানীয় আওয়ামীগের বিরুদ্ধে অবস্থান নেয়ার ফলে এলাকায় কোনঠাসা হয়ে পড়ে সাংসদ হাজী রহিমুল্লাহ, এক পর্যায় সেখান থেকে জবর-দখল করা কিছু জমি সম্পূর্ণ বেআইনী ভাবে ইজারা নেয় জামায়াত নেতা জসিম, কথিত ইজারা নিয়ে সে আসপাশের আরো কিছু জমি দখল করে মৎস্য চাষ প্রকল্পের কাজ শুরু করে।
জমির প্রকৃত মালীকরা প্রতিবাদ করলে সোনাগাজীর এক প্রভাবশালী আওয়ামীলীগ নেতা সহ জমির মালিকদের খুন গুম ও মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে দেয়ার ভয়ভীতি দেখিয়ে তাড়িয়ে দেয়, প্রকৃত ভূমি মালিকরা ফেনীর শহীদ মিনার চত্বরে মানববন্ধন করে ভূমি খেকো জামায়াত নেতার বিচার ও জমি ফেরৎ পাওয়ার দাবী জানান।
জামায়াত নেতা জসিমের জবর দখল করা জমিনের মূল মালিকগন হলেনঃ মেজর (অব) সোলায়মান, ৭নং সোনাগাজী ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক রুমন, কাশ্মীরবাজার নিবাসী বীরমুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ইসমাঈল হোসেন, চরলামছি নিবাসী সাবেদ আলী,
ভোয়াগ গ্রামের নিবাসী নুরুল হুদা, ভৈরব চৌধুরী বাজার এলাকার গিয়াস উদ্দিন, সোনাপুর নিবাসী ভোলা মিয়া, একই গ্রামের নাসির উদ্দিন এবং তিনবাড়িয়া নিবাসী কালামিয়া প্রমূখ।
বর্তমানে আশপাশের আরো বেশকিছু জমি জামায়াত নেতা জসিম সোনাগাজীর স্থানীয় এক প্রভাবশালী আওয়ামীলীগ নেতার ইন্ধনে জবর দখল করতে মরিয়া।

এবিষয়ে জানতে চাইলে আমিরাবাদ ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক আয়ুব নবী ফরহাদ এই প্রতিবেদক কে জানান, জোরারগঞ্জের জামায়াত নেতা জসিম উদ্দিন আমাদের নামে চাঁদাবাজির মিথ্যা অভিযোগ করেছে, এই অভিযোগের কোন ভিত্তি নেই, স্থানীয় এক আওয়ামীলীগ নেতার ইন্ধনেই এই মামলাটি করা হয়েছে, যদি এই অভিযোগের বিন্দুমাত্র সত্যতা থাকে তাহলে প্রকাশ্যে ঘোষনা দিলাম রাজনীতি এবং সোনাগাজীর মাটি দু’টোই ছেডে চলে যাবো।

সোনাগাজী উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক (সাবেক) ইফতেখার হোসেন খোন্দকার বলেন, জুলুমবাজ ভূমি-খেকোরা আমাদের নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে আমাদের সম্মানহানী সহ অযথা হয়রানি করছে, আমরা প্রকৃত জমি মালিকদের পক্ষে কথা বলায় তাদের গায়ে লেগেছে, এখন আমারা চাঁদা দাবী করছি বলে অপ-প্রচার চালাচ্ছে, এছাড়া সত্য একদিন প্রকাশ হবেই এবং তার সাথে ভূমি-খেকোদের পতন ও প্রকৃত মালিকরা তাদের জমি বুজে পাবে বলে তিনি মন্তব্য করেন।

স্থানীয় বাসিন্দা মেজর (অবঃ) সোলায়মান বলেন, আমাদের প্রকৃত মালীকানার জমি গুলো এক শ্রেণীর ভূমি দস্যুরা দখল করে রেখেছে, আমরা এর থেকে পরিত্রান চাই, এসব অন্যায়কারী ও জুলুমবাজদের হাত থেকে বাঁচতে চাই।

Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



web-ad

সর্বশেষ আপডেট





সম্পাদক ও প্রকাশক:: কামরুল ইসলাম কানন।
যোগাযোগ:: ০১৭১২৯৮৩৭৫১।
ইমেইল [email protected]

Developed BY Trustsoftbd