ADS170638-2

লক্ষ্মীপুর ফনির প্রভাবে আকাশে কালো মেঘ, ৬নম্বর সতর্ক সংকেত

প্রিয় নোয়াখালী ডেস্কঃ
দেশের পূর্ব উপকূলীয় জেলা লক্ষ্মীপুর। এ জেলার ৪টি উপজেলা মেঘনা নদী ঘিরে রেখেছে। যেকোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগে প্রচণ্ড ঝুঁকিতে থাকে এ জনপদ। ইতোমধ্যে ঘূর্ণিঝড় ফোনির প্রভাবে লক্ষ্মীপুরে ৬ নম্বর সতর্ক সংকেত জারি করেছে আবহাওয়া অধিদফতর। এদিকে প্রচণ্ড গরমের মধ্যেও হঠাৎ লক্ষ্মীপুরের আকাশে কালো মেঘ দেখা গেছে। ফোনির প্রভাবে এমনটি হচ্ছে বলে মানুষের ধারণা।

বৃহস্পতিবার (২ মে) দুপুর ১টার দিকে লক্ষ্মীপুরের দক্ষিণ আকাশে কালো মেঘ দেখা গেছে। পরে ধীরে ধীরে মেঘ মাঝ আকাশে চলে আসলেও বৃষ্টি হয়নি। তবে গত রাতে লক্ষ্মীপুরে কয়েক মিনিটের জন্য হালকা বৃষ্টি হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, ঘূর্ণিঝড় ফোনির প্রভাবে এমন হয়েছে। এদিকে এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত উপকূলীয় এলাকায় কোন সমস্যা হয়নি বলে জানা গেছে।

অন্যদিকে প্রায় ১০ বছর ধরে খালি পড়ে আছে জেলার রামগতি উপজেলায় স্থাপিত আবহাওয়া অফিস। এখন পর্যন্ত সেখানে কোন কার্যক্রম চালু হয়নি। এতে করে এ জনপদের প্রায় ১৮ লাখ মানুষ সঠিক সময়ে আবহাওয়ার খবর জানতে পারছে না। অনলাইন গণমাধ্যম ও টিভির মাধ্যমে জানতে হয় আবহাওয়ার তথ্য।

জেলা প্রশাসকের কার্যালয় সূত্র জানায়, ঘূর্ণিঝড় ফোনি মোকাবেলায় লক্ষ্মীপুরে ৬৬টি মেডিকেল টিম, সরকারি বরাদ্দের ৩৭৫ মেট্রিক টন চাল, ২৫০০ বস্তা শুকনো খাবার ও নগদ ৮ লাখ টাকা মজুদ রাখা হয়েছে। এছাড়া ১০০টি আশ্রয় কেন্দ্র ও উপকূলীয় এলাকার সকল পাকা শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান প্রস্তুত রাখা হয়েছে। সার্বিক তত্ত্বাবধান জরুরি সেবা প্রদানের জন্য চালু করা হয়েছে নিয়ন্ত্রণ কক্ষ। জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারা নিয়ন্ত্রণে কাজ করবেন বলে জানা যায়।

ঘূর্ণিঝড় ফোনি থেকে রক্ষা পেতে মেঘনা নদীতে সকল মাছ ধরার নৌকা ও নৌ-চলাচল বন্ধ করাসহ বিচ্ছিন্ন দ্বীপ ও চরাঞ্চলের মানুষদের নিরাপদে সরিয়ে আনার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। জেলায় কর্মরত সকল সরকারি কর্মকর্তার ছুটি বাতিল করা হয়েছে।

বুধবার (১ মে) রাতে লক্ষ্মীপুর জেলা প্রশাসক অঞ্জন চন্দ্র পালের সভাপতিত্বে জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, পুলিশ প্রশাসন, রেড ক্রিসেন্ট, ফায়ার সার্ভিস, কোস্টগার্ড ও সিপিডির কর্মকর্তাদের নিয়ে আয়োজিত জরুরি বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত নেন।

Share Button

সর্বশেষ আপডেট



» চাটখিল দলিল লিখক সমিতির সভাপতি দুলাল, সা: সম্পাদক স্বপন পাটোয়ারী

» লক্ষ্মীপুরে যুগান্তরের সাংবাদিককে ইউপি চেয়ারম্যানের মারধর প্রাণনাশের হুমকি

» সংবাদকর্মী সজিবের কেন এই অভিমানী প্রস্তান!

» ফেসবুক গ্রুপ নোয়াখালী রয়েল ড্রিস্টিকের উদ্যোগে মাদ্রাসা ছাত্রদের সম্মানে ইফতার ও ঈদ সামগ্রী বিতরন

» সুবর্ণচরের বধুগঞ্জে স্টুডেন্টস ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশনের ইফতার মাহফিল অনুষ্ঠিত “

» বেগমগঞ্জে গৃহবধূকে গণধর্ষণ, অস্ত্রসহ গ্রেপ্তার-২

» খিলপাড়া ব্লাড ডোনেট ক্লাবের আয়োজনে ইফতার অনুষ্ঠিত

» যদি শিরোনাম হয় দক্ষিণ আফ্রিকা!

» রামগতিতে ব্যবসায়ীদের নিয়ে “জামায়াতে ইসলামী”র ইফতার!

» চাটখিলে ধান সংগ্রহ উদ্বোধন করলেন ইউএনও দিদারুল আলম

ফেইসবুকে প্রিয় নোয়াখালী

add pn
সম্পাদক ও প্রকাশক:: কামরুল ইসলাম কানন।
যোগাযোগ:: ০১৭১২৯৮৩৭৫১।
ইমেইল [email protected]
Desing & Developed BY Trust soft bd
ADS170638-2
,

লক্ষ্মীপুর ফনির প্রভাবে আকাশে কালো মেঘ, ৬নম্বর সতর্ক সংকেত

প্রিয় নোয়াখালী ডেস্কঃ
দেশের পূর্ব উপকূলীয় জেলা লক্ষ্মীপুর। এ জেলার ৪টি উপজেলা মেঘনা নদী ঘিরে রেখেছে। যেকোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগে প্রচণ্ড ঝুঁকিতে থাকে এ জনপদ। ইতোমধ্যে ঘূর্ণিঝড় ফোনির প্রভাবে লক্ষ্মীপুরে ৬ নম্বর সতর্ক সংকেত জারি করেছে আবহাওয়া অধিদফতর। এদিকে প্রচণ্ড গরমের মধ্যেও হঠাৎ লক্ষ্মীপুরের আকাশে কালো মেঘ দেখা গেছে। ফোনির প্রভাবে এমনটি হচ্ছে বলে মানুষের ধারণা।

বৃহস্পতিবার (২ মে) দুপুর ১টার দিকে লক্ষ্মীপুরের দক্ষিণ আকাশে কালো মেঘ দেখা গেছে। পরে ধীরে ধীরে মেঘ মাঝ আকাশে চলে আসলেও বৃষ্টি হয়নি। তবে গত রাতে লক্ষ্মীপুরে কয়েক মিনিটের জন্য হালকা বৃষ্টি হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে, ঘূর্ণিঝড় ফোনির প্রভাবে এমন হয়েছে। এদিকে এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত উপকূলীয় এলাকায় কোন সমস্যা হয়নি বলে জানা গেছে।

অন্যদিকে প্রায় ১০ বছর ধরে খালি পড়ে আছে জেলার রামগতি উপজেলায় স্থাপিত আবহাওয়া অফিস। এখন পর্যন্ত সেখানে কোন কার্যক্রম চালু হয়নি। এতে করে এ জনপদের প্রায় ১৮ লাখ মানুষ সঠিক সময়ে আবহাওয়ার খবর জানতে পারছে না। অনলাইন গণমাধ্যম ও টিভির মাধ্যমে জানতে হয় আবহাওয়ার তথ্য।

জেলা প্রশাসকের কার্যালয় সূত্র জানায়, ঘূর্ণিঝড় ফোনি মোকাবেলায় লক্ষ্মীপুরে ৬৬টি মেডিকেল টিম, সরকারি বরাদ্দের ৩৭৫ মেট্রিক টন চাল, ২৫০০ বস্তা শুকনো খাবার ও নগদ ৮ লাখ টাকা মজুদ রাখা হয়েছে। এছাড়া ১০০টি আশ্রয় কেন্দ্র ও উপকূলীয় এলাকার সকল পাকা শিক্ষা-প্রতিষ্ঠান প্রস্তুত রাখা হয়েছে। সার্বিক তত্ত্বাবধান জরুরি সেবা প্রদানের জন্য চালু করা হয়েছে নিয়ন্ত্রণ কক্ষ। জেলা প্রশাসক ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তারা নিয়ন্ত্রণে কাজ করবেন বলে জানা যায়।

ঘূর্ণিঝড় ফোনি থেকে রক্ষা পেতে মেঘনা নদীতে সকল মাছ ধরার নৌকা ও নৌ-চলাচল বন্ধ করাসহ বিচ্ছিন্ন দ্বীপ ও চরাঞ্চলের মানুষদের নিরাপদে সরিয়ে আনার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। জেলায় কর্মরত সকল সরকারি কর্মকর্তার ছুটি বাতিল করা হয়েছে।

বুধবার (১ মে) রাতে লক্ষ্মীপুর জেলা প্রশাসক অঞ্জন চন্দ্র পালের সভাপতিত্বে জেলা প্রশাসনের কর্মকর্তা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, পুলিশ প্রশাসন, রেড ক্রিসেন্ট, ফায়ার সার্ভিস, কোস্টগার্ড ও সিপিডির কর্মকর্তাদের নিয়ে আয়োজিত জরুরি বৈঠকে এসব সিদ্ধান্ত নেন।

Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



web-ad

সর্বশেষ আপডেট





সম্পাদক ও প্রকাশক:: কামরুল ইসলাম কানন।
যোগাযোগ:: ০১৭১২৯৮৩৭৫১।
ইমেইল [email protected]m

Developed BY Trustsoftbd