ADS170638-2

রামগঞ্জে পরকিয়া প্রেমিকের সাথে দেখা করতে গিয়ে অবরুদ্ধ নারী উদ্যোগতাকে উদ্ধার নিয়ে তোলপাড়

আবু তাহেরঃ
লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলার ৯নং ভোলাকোট ইউনিয়নের টিওরী স্বাস্থ্য পরিবার কল্যান কেন্দ্র থেকে রোববার রাতে অবরুদ্ধ নারী উদ্যোগতা দুর্গা রানী সাহাকে পুলিশ উদ্ধার করেছে। দূর্ঘা রানী সাহা উপজেলার ৪নং ইছ্পাুর ইউনিয়নের তথ্য কেন্দ্রের উদ্যোক্তা বলে জানা গেছে। ঘটনাটি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে একটি মহল উঠে পড়ে লেগেছে। কিন্তুু নিজকর্মস্থল ইছাপুর তথ্য অফিস ছেড়ে দুর্গা মনি কেন রাতের বেলায় টিউরী ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়েছিলো তা নিয়ে উপজেলাব্যাপী নানা সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে।
সুত্রে জানায়,উপজেলার ইছাপুর ইউপি কার্যালয়ের তথ্য কেন্দ্রের নারী উদ্যোগতা দুর্গা রানী সাহার সাথে টিওরী স্বাস্থ্য পরিবার কেন্দ্রের ভিজিটর কাউছার জান্নাতের স্বামী মোঃ সুমন হোসেনের দীর্ঘ দিন যাবত পরকিয়া চলে আসছে। এরই সূত্র ধরে দুর্গা রানী সাহা রোববার সন্ধ্যায় ওই স্বাস্থ্য কেন্দ্রের ভিতরে প্রবেশ করলে টিউরী বাজারের ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসী একত্রিত হয়ে ভিজিটরের বাসার কক্ষে অবরুদ্ধ করে। দীর্ঘ ৩ঘন্টা অবরুদ্ধ থাকার পর পুলিশ উপস্থিত হয়ে নারী উদ্যোগতা দুর্গা রানী সাহাকে উদ্ধার করলেও প্রেমিক সুমন পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। টিওরী বাজার ব্যবসায়ী সহেল ভূইয়াসহ কয়েকজন বলেন,দুর্গা রানীর স্বামী লিটন নন্দী একটি প্রাইভেট আর্থিক প্রতিষ্ঠানে চাকরী করে। টিউরী বাজারের একাধিক ব্যবসায়ী জানান,কয়েক মাস যাবত দুর্ঘা রানী সাহা ভিজিটর কাউছারের অনুপুস্থিতে সুমনের সাথে দেখা করতে টিউরী স্বাস্থ্য কেন্দ্রে আসা-যাওয়া করে। এতে বিষয়টি স্থানীয় এলাকাবাসীর সবার নজরে পড়ে। স্বাস্থ্য পরিবারে কেন্দ্রের ভিজিটর কাউছার সরকারী প্রশিক্ষনে ঢাকাতে অবস্থান করলেও তার স্বামী সুমন একাই ভিজিটরের নামে বরাদ্ধ থাকা রুমে একাই বসবাস করছে। দুর্গার স্বামী লিটন নন্দী বলেন,কয়েক মাস পুর্বেও রামগঞ্জ বাইপাস সড়কে অবস্থিত একটি হোটেলের কক্ষে অন্য পুরুষের সাথে আড্ডা দেওয়ার সময় আমি নিজেই আটক করি। পওে সামাজিকভাবে দেনদরবার করে আবার সংসার শুরু করি। কিন্তু এখন আবার এ অবস্থা। পুলিশ যদি উদ্ধার না করতো উত্তেজিত জনতা কি যে করতো।
দুঘা রানী সাহা জানান, এ বিষয়ে আমি মিডিয়ার সাথে কোন কথা বলবো না। কথা যদি বলতে হয় আমার গার্ডিয়ান,ভাই,স্বামী ওদের সাথে কথা বলেন। আপনাকে আটকের ছবি আমাদের কাছে রয়েছে এমন প্রশ্নের জবাবে দুর্ঘা বলেন, ডিজিটাল যুগে ছবি দিয়ে কোন কিছুর প্রমান করা যাবেনা। কারন এসব ছবি ইডিটিং করে এই বহুরকম করা যায়।
রামগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আনোয়ার হোসেন বলেন,পুলিশ খরব পেয়ে দ্রæত ইছাপুর ইউনিয়নের তথ্য কেন্দ্রের উদ্যোগতা দুর্ঘা রানী সাহাকে উদ্ধার করা হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

Share Button

সর্বশেষ আপডেট



» সুবর্ণচরের থানার হাটে শর্ট ক্রীজ রৌপ্যকাপ ক্রিকেটের ফাইনাল অনুষ্ঠিত

» ফেনীতে বিষাক্ত সাপের দংশনে যুবকের মৃত্যু

» কবিরহাটে চোরাই মোটর সাইকেলসহ ছাত্রলীগ সভাপতি র‍্যাবের হাতে আটক

» সেনবাগে ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে দুই গ্রামবাসীর রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ

» চাটখিলে নানার বাড়িতে বেড়াতে এসে পুকুরে ডুবে শিশুর মৃত্যু

» বাবার দেয়া বাইকেই প্রাণ গেল কলেজ পড়ুয়া ছেলের

» এখনো অধরা সুবর্ণচরে কিশোরী গণধর্ষণের সে ধর্ষকরা

» কোম্পানীগঞ্জে সিএনজি চাপায় ৪ বছরের শিশুর মর্মান্তিক মৃত্যু

» আবারো সেই সুবর্ণচর, এবার গণধর্ষনের শিকার ১৪ বছরের কিশোরী

» রামগঞ্জে বাল্য বিয়ের প্রস্তুতির দায়ে কনের অর্থদন্ড

ফেইসবুকে প্রিয় নোয়াখালী

add pn
সম্পাদক ও প্রকাশক:: কামরুল ইসলাম কানন।
যোগাযোগ:: ০১৭১২৯৮৩৭৫১।
ইমেইল [email protected]
Desing & Developed BY Trust soft bd
ADS170638-2
,

রামগঞ্জে পরকিয়া প্রেমিকের সাথে দেখা করতে গিয়ে অবরুদ্ধ নারী উদ্যোগতাকে উদ্ধার নিয়ে তোলপাড়

আবু তাহেরঃ
লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জ উপজেলার ৯নং ভোলাকোট ইউনিয়নের টিওরী স্বাস্থ্য পরিবার কল্যান কেন্দ্র থেকে রোববার রাতে অবরুদ্ধ নারী উদ্যোগতা দুর্গা রানী সাহাকে পুলিশ উদ্ধার করেছে। দূর্ঘা রানী সাহা উপজেলার ৪নং ইছ্পাুর ইউনিয়নের তথ্য কেন্দ্রের উদ্যোক্তা বলে জানা গেছে। ঘটনাটি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে একটি মহল উঠে পড়ে লেগেছে। কিন্তুু নিজকর্মস্থল ইছাপুর তথ্য অফিস ছেড়ে দুর্গা মনি কেন রাতের বেলায় টিউরী ইউনিয়ন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়েছিলো তা নিয়ে উপজেলাব্যাপী নানা সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে।
সুত্রে জানায়,উপজেলার ইছাপুর ইউপি কার্যালয়ের তথ্য কেন্দ্রের নারী উদ্যোগতা দুর্গা রানী সাহার সাথে টিওরী স্বাস্থ্য পরিবার কেন্দ্রের ভিজিটর কাউছার জান্নাতের স্বামী মোঃ সুমন হোসেনের দীর্ঘ দিন যাবত পরকিয়া চলে আসছে। এরই সূত্র ধরে দুর্গা রানী সাহা রোববার সন্ধ্যায় ওই স্বাস্থ্য কেন্দ্রের ভিতরে প্রবেশ করলে টিউরী বাজারের ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসী একত্রিত হয়ে ভিজিটরের বাসার কক্ষে অবরুদ্ধ করে। দীর্ঘ ৩ঘন্টা অবরুদ্ধ থাকার পর পুলিশ উপস্থিত হয়ে নারী উদ্যোগতা দুর্গা রানী সাহাকে উদ্ধার করলেও প্রেমিক সুমন পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়। টিওরী বাজার ব্যবসায়ী সহেল ভূইয়াসহ কয়েকজন বলেন,দুর্গা রানীর স্বামী লিটন নন্দী একটি প্রাইভেট আর্থিক প্রতিষ্ঠানে চাকরী করে। টিউরী বাজারের একাধিক ব্যবসায়ী জানান,কয়েক মাস যাবত দুর্ঘা রানী সাহা ভিজিটর কাউছারের অনুপুস্থিতে সুমনের সাথে দেখা করতে টিউরী স্বাস্থ্য কেন্দ্রে আসা-যাওয়া করে। এতে বিষয়টি স্থানীয় এলাকাবাসীর সবার নজরে পড়ে। স্বাস্থ্য পরিবারে কেন্দ্রের ভিজিটর কাউছার সরকারী প্রশিক্ষনে ঢাকাতে অবস্থান করলেও তার স্বামী সুমন একাই ভিজিটরের নামে বরাদ্ধ থাকা রুমে একাই বসবাস করছে। দুর্গার স্বামী লিটন নন্দী বলেন,কয়েক মাস পুর্বেও রামগঞ্জ বাইপাস সড়কে অবস্থিত একটি হোটেলের কক্ষে অন্য পুরুষের সাথে আড্ডা দেওয়ার সময় আমি নিজেই আটক করি। পওে সামাজিকভাবে দেনদরবার করে আবার সংসার শুরু করি। কিন্তু এখন আবার এ অবস্থা। পুলিশ যদি উদ্ধার না করতো উত্তেজিত জনতা কি যে করতো।
দুঘা রানী সাহা জানান, এ বিষয়ে আমি মিডিয়ার সাথে কোন কথা বলবো না। কথা যদি বলতে হয় আমার গার্ডিয়ান,ভাই,স্বামী ওদের সাথে কথা বলেন। আপনাকে আটকের ছবি আমাদের কাছে রয়েছে এমন প্রশ্নের জবাবে দুর্ঘা বলেন, ডিজিটাল যুগে ছবি দিয়ে কোন কিছুর প্রমান করা যাবেনা। কারন এসব ছবি ইডিটিং করে এই বহুরকম করা যায়।
রামগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোঃ আনোয়ার হোসেন বলেন,পুলিশ খরব পেয়ে দ্রæত ইছাপুর ইউনিয়নের তথ্য কেন্দ্রের উদ্যোগতা দুর্ঘা রানী সাহাকে উদ্ধার করা হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



web-ad

সর্বশেষ আপডেট





সম্পাদক ও প্রকাশক:: কামরুল ইসলাম কানন।
যোগাযোগ:: ০১৭১২৯৮৩৭৫১।
ইমেইল [email protected]

Developed BY Trustsoftbd