রামগতির চরগাজীতে জমির মালিককে প্রকাশ্যে হত্যার চেষ্টা

 

ইউনুছ শিকদারঃ

রামগতি উপজেলায় অবৈধভাবে জমি দখল করতে গিয়ে ষাটোর্ধ বৃদ্ধকে হত্যার চেষ্টা। জানা যায়,চরগাজী ইউনিয়ন দক্ষিণ টুমচর ৪ নং ওয়ার্ডে গতকাল সকাল ৯ ঘটিকার সময় পৈতৃক সূত্রে দখলদার নুর উদ্দিন (৬০) ও হুমায়ুন কবিরের (৫০) বসত বাড়ির স্থাপনার জায়গা ঘেঁষে অবৈধ ভাবে মহিউদ্দিন ও তার দলবল ডিপটিউভয়েল নির্মাণ করার সময়ে স্থাপনার মালিক বৃদ্ধ নুর উদ্দিন গিয়ে জানতে চাই, কেন আমাদের স্থাপনার গাছপালা কাটা হয়েছে, গর্ত করা হয়েছে আমাদেরকে না জানিয়ে।

এসময়ে গ্রাম্য ডাক্তার মহি উদ্দিন (৬৫) ও তার পুত্র গ্রাম্য ডাক্তার বাবলু (৪৭) ঐ বৃদ্ধ
নুর উদ্দিন কে মারধর করে, ধারালো অস্ত্র দিয়ে তার ঠোঁট কেটে দেয় এবং গলায় গামছা পেছিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টা করে বলে জানা যায়। এসময়ে মহি উদ্দিনের মেজ ছেলে বিডিআর বিদ্রোহের সাজা প্রাপ্ত আসামি ফজলে আজীম বাকের ও বড় ছেলে জহিরুল ইসলাম দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে হামলায় সমর্থন যুগিয়েছিল।

স্থানীয় লোকজন ও আহত নূরউদ্দিনের স্ত্রী এগিয়ে এসে নুর উদ্দিন কে রক্ষাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে রামগতি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। বর্তমানে নুর উদ্দিন চিকিৎসাধীন আছে।

এই মর্মে রামগতি থানায় একটি দরখাস্ত দেওয়া হয়েছে এজাহার হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য যার SDR নং : ৭৪৩/১৯
তদন্ত কর্মকর্তা মকবুল হোসেন বলেন তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
অভিযুক্ত বাবলুর সাথে কথা বললে তিনি বলেন ঘটনা তেমনকিছু ঘটেনি শুধু কথা কাটাকাটি হয়েছে।

গত ২২/০৭/২০১৮ ইং তারিখে মহিউদ্দিন ও তার মেজ ছেলে বিডিআর বিদ্রোহের সাজা প্রাপ্ত আসামী ফজলে আজীম বাকের ও তার লোকজন নিয়ে একই কায়দার হামলা করে বসতবাড়ির মালামাল নষ্ট করে।এই মর্মে রামগতি থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা আছে।

গতকাল ফের আবার ২য় দফায় হামলা চালিয়েছে মহি উদ্দিন গংরা। এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে বহুবার সালিশ -বিচার হয়েছে । স্থানীয় সবেরের ছেলে মাইনউদ্দিনকে কিছুদিন আগে বেধড়ক পিটিয়েছে বাবলু ও বাকের। ফৌজদারি অপরাধ হলেও সালিসি বৈঠকে মহিউদ্দিন সেটা মিটমাট করে ফেলেন।

এছাড়াও ছোট ছেলে রহমানের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ উঠে কাজের মেয়ের সাথে।টাকা পয়সা, হুমকি দামকি দিয়ে সেটাও ধামাচাপা দেওয়ার দেওয়া হয়।

অভিযোগ আছে মাত্র কয়েকদিন আগে মহিউদ্দিনের ছোট ছেলে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে প্রতিবেশী সবেরের মেয়ে ছলেখা বেগমের একটি ছাগল আচাড় দিয়ে মেরে ফেলে।

প্রতিবেশীর সাথে বিবাদে জড়ানোসহ জমি কব্জা করার বিস্তর অভিযোগ রয়েছে এই পরিবারের বিরুদ্ধে।

ইতিপূর্বে মহি উদ্দিনেের বড় ছেলে জহিরুল ইসলাম রামগতি এজি অফিসে থাকতে ঘুষ নিয়ে অঢেল সম্পত্তি অর্জন করেন। একবার অভিযোগ প্রমাণিত হলে তাকে ঢাকা থেকে হাতিয়ায় ট্রান্সপার করা হয়। বর্তমানে জহিরুল ইসলাম চাকরি থেকে অবসরে গেলেও দুর্নীতির দায়ে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্ত চলছে।

এহেন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের দ্রুত বিচার দাবী করছে এলাকাবাসী ও ভুক্তভোগীরা।

Share Button

সর্বশেষ আপডেট



» নারীর লাশ ঝুলছে, সন্তানের পানিতে,স্বামী পলাতক

» সোনাইমুড়ী প্রেসক্লাবের নুতন সভাপতি খোরশেদ আলম সাধারণ সম্পাদক বেলাল হোছাইন ভূঁইয়া

» করোনা দুর্যোগে নোয়াখালীর ৩০ হাজার মানুষের পাশে প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারী জাহাঙ্গীর আলম

» বেগমগঞ্জে ঈদের রাতে আ,লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ সহ আহত ৯ গ্রেফতার ৩

» নোয়াখালী সিভিল সার্জন অফিসের ফেসবুক আইডি হ্যাক

» চাটখিলে বাবার বাড়ী থেকে ১ সন্তানের জননীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

» করোনা উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তির কয়েক ঘন্টা পরে মারা গেলেন বেগমগঞ্জের একজন

» স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘উইফরইউ পাঠশালা’র ১২০ শিক্ষার্থী পেল ঈদ উপহার ও নগদ অর্থ

» নোয়াখালীতে নুতন আক্রান্ত ৭৭, চাটখিল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জরুরী বিভাগ বাদে সব বন্ধ

» নোয়াখালীতে আম্পানে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়িয়েছে সেনাবাহিনীর

ফেইসবুকে প্রিয় নোয়াখালী

সম্পাদক ও প্রকাশক:: কামরুল ইসলাম কানন।
যোগাযোগ:: ০১৭১২৯৮৩৭৫১।
ইমেইল [email protected]
Desing & Developed BY Trust soft bd
,

রামগতির চরগাজীতে জমির মালিককে প্রকাশ্যে হত্যার চেষ্টা

 

ইউনুছ শিকদারঃ

রামগতি উপজেলায় অবৈধভাবে জমি দখল করতে গিয়ে ষাটোর্ধ বৃদ্ধকে হত্যার চেষ্টা। জানা যায়,চরগাজী ইউনিয়ন দক্ষিণ টুমচর ৪ নং ওয়ার্ডে গতকাল সকাল ৯ ঘটিকার সময় পৈতৃক সূত্রে দখলদার নুর উদ্দিন (৬০) ও হুমায়ুন কবিরের (৫০) বসত বাড়ির স্থাপনার জায়গা ঘেঁষে অবৈধ ভাবে মহিউদ্দিন ও তার দলবল ডিপটিউভয়েল নির্মাণ করার সময়ে স্থাপনার মালিক বৃদ্ধ নুর উদ্দিন গিয়ে জানতে চাই, কেন আমাদের স্থাপনার গাছপালা কাটা হয়েছে, গর্ত করা হয়েছে আমাদেরকে না জানিয়ে।

এসময়ে গ্রাম্য ডাক্তার মহি উদ্দিন (৬৫) ও তার পুত্র গ্রাম্য ডাক্তার বাবলু (৪৭) ঐ বৃদ্ধ
নুর উদ্দিন কে মারধর করে, ধারালো অস্ত্র দিয়ে তার ঠোঁট কেটে দেয় এবং গলায় গামছা পেছিয়ে শ্বাসরোধ করে হত্যার চেষ্টা করে বলে জানা যায়। এসময়ে মহি উদ্দিনের মেজ ছেলে বিডিআর বিদ্রোহের সাজা প্রাপ্ত আসামি ফজলে আজীম বাকের ও বড় ছেলে জহিরুল ইসলাম দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে হামলায় সমর্থন যুগিয়েছিল।

স্থানীয় লোকজন ও আহত নূরউদ্দিনের স্ত্রী এগিয়ে এসে নুর উদ্দিন কে রক্ষাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে রামগতি স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। বর্তমানে নুর উদ্দিন চিকিৎসাধীন আছে।

এই মর্মে রামগতি থানায় একটি দরখাস্ত দেওয়া হয়েছে এজাহার হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করার জন্য যার SDR নং : ৭৪৩/১৯
তদন্ত কর্মকর্তা মকবুল হোসেন বলেন তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
অভিযুক্ত বাবলুর সাথে কথা বললে তিনি বলেন ঘটনা তেমনকিছু ঘটেনি শুধু কথা কাটাকাটি হয়েছে।

গত ২২/০৭/২০১৮ ইং তারিখে মহিউদ্দিন ও তার মেজ ছেলে বিডিআর বিদ্রোহের সাজা প্রাপ্ত আসামী ফজলে আজীম বাকের ও তার লোকজন নিয়ে একই কায়দার হামলা করে বসতবাড়ির মালামাল নষ্ট করে।এই মর্মে রামগতি থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করা আছে।

গতকাল ফের আবার ২য় দফায় হামলা চালিয়েছে মহি উদ্দিন গংরা। এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে বহুবার সালিশ -বিচার হয়েছে । স্থানীয় সবেরের ছেলে মাইনউদ্দিনকে কিছুদিন আগে বেধড়ক পিটিয়েছে বাবলু ও বাকের। ফৌজদারি অপরাধ হলেও সালিসি বৈঠকে মহিউদ্দিন সেটা মিটমাট করে ফেলেন।

এছাড়াও ছোট ছেলে রহমানের বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ উঠে কাজের মেয়ের সাথে।টাকা পয়সা, হুমকি দামকি দিয়ে সেটাও ধামাচাপা দেওয়ার দেওয়া হয়।

অভিযোগ আছে মাত্র কয়েকদিন আগে মহিউদ্দিনের ছোট ছেলে পূর্ব শত্রুতার জের ধরে প্রতিবেশী সবেরের মেয়ে ছলেখা বেগমের একটি ছাগল আচাড় দিয়ে মেরে ফেলে।

প্রতিবেশীর সাথে বিবাদে জড়ানোসহ জমি কব্জা করার বিস্তর অভিযোগ রয়েছে এই পরিবারের বিরুদ্ধে।

ইতিপূর্বে মহি উদ্দিনেের বড় ছেলে জহিরুল ইসলাম রামগতি এজি অফিসে থাকতে ঘুষ নিয়ে অঢেল সম্পত্তি অর্জন করেন। একবার অভিযোগ প্রমাণিত হলে তাকে ঢাকা থেকে হাতিয়ায় ট্রান্সপার করা হয়। বর্তমানে জহিরুল ইসলাম চাকরি থেকে অবসরে গেলেও দুর্নীতির দায়ে তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্ত চলছে।

এহেন সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের দ্রুত বিচার দাবী করছে এলাকাবাসী ও ভুক্তভোগীরা।

Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



web-ad

সর্বশেষ আপডেট





সম্পাদক ও প্রকাশক:: কামরুল ইসলাম কানন।
যোগাযোগ:: ০১৭১২৯৮৩৭৫১।
ইমেইল [email protected]

Developed BY Trustsoftbd