কোম্পানীগঞ্জে শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ, অতঃপর…

 

গিয়াস উদ্দিন রনি:

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে সংখ্যালঘু পরিবারের পঞ্চম শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রী (১৩), কে শ্লীলতাহানি চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রভাবশালী স্থানীয় শিক্ষকের বিরুদ্ধে।
গত সোমবার (৪ নভেম্বর) সকাল সাড়ে আটটার দিকে উপজেলার মুছাপুর ইউনিয়নের বাংলাবাজারের পূর্ব মুছাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন পাশের ভবনে দ্বিতীয় তলায় ওই ছাত্রী প্রাইভেট পড়তে গেলে এ ঘটনা ঘটে।
অভিযুক্ত মিজানুর রহমান মিলন পূর্ব মুছাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক এবং একই এলাকার পান কাজী ব্যাপারী বাড়ির মো. ইউছুফ’র ছেলে।
এ বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি আবুল ফাররাহ মিলন বলেন, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলাম আমাকে ফোনে গতকাল জানিয়েছে এক ছাত্রীর অভিভাবক বিদ্যালয়ে এসে সহকারি শিক্ষক মো.আলমগীর’র কাছে অভিযোগ করেছেন মিলন স্যার এক ছাত্রী প্রাইভেট পড়তে গেলে ডিস্ট্রাব করেছেন। তিনি আরো জানান, আজ ওই ছাত্রীর অভিভাবক লিখিত অভিযোগ দেয়ার কথা ছিল,তবে আজ তারা লিখিত কোন অভিযোগ দেয়নি।
সরেজমিনে বিদ্যালয়ে গেলে সহকর্মি শিক্ষকের বিরুদ্ধে মৌখিকভাবে শ্লীলতাহানির অভিযোগ পাওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন সহকারি শিক্ষক আলমগীর।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক অভিভাবক জানান, ওই শিক্ষক স্থানীয়ভাবে প্রভাবশালী হওয়ায় শ্লীলতাহানির শিকার সংখ্যালঘু ওই স্কুল ছাত্রীর পরিবার হুমকি ধামকির মুখে ভয়ে ঘটনার ১দিন পরে বলছে, ছাত্রীকে শ্লীলতাহানি করেনি, প্রাইভেট পড়তে গেলে তাকে মারধর করে। অভিভাবক মহল এ ঘটনায় উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
ওই ছাত্রীর চাচা বিধান চন্দ্র দাশ বলেন, যে টুকু ঘটেছে তার জন্য আমরা শিক্ষকের কাছে মৌখিকভাবে বিচার দিয়েছি, লিখিত অভিযোগ দেয়ার মতো কিছু ঘটেনি।
স্থানীয় ইউপি সদস্য আহছান উল্যাহ ভুট্রু বলেন, ওই ছাত্রী আমার সামনে বলেছে শিক্ষক তার গায়ে হাত দিয়েছে। এখন অভিযোগ নাকচ করলে আমাদের কিছু করার নেই।
এ বিষয়ে অভিযুক্ত শিক্ষক মিজানুর রহমান নিজেকে নির্দোষ দাবি করে বলেন, তিনি ষড়যন্ত্রের শিকার।
এ বিষয়ে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ফয়সেল আহমদ বলেন, মৌখিক ভাবে গণমাধ্যম কর্মিদের থেকে আমি এ শুনেছি। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে এ বিষয়ে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য আমি নির্দেশ দিয়েছি।
কোম্পানীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আরিফুর রহমান বলেন, ছাত্রীর শ্লীলতাহানির ঘটনার কথা শুনেছি। পুলিশ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

বার্তা প্রেরক
গিয়াস উদ্দিন রনি
মু.০১৬৭৬-৬৯৮৬২৬, নোয়াখালী।

Share Button

সর্বশেষ আপডেট



» নারীর লাশ ঝুলছে, সন্তানের পানিতে,স্বামী পলাতক

» সোনাইমুড়ী প্রেসক্লাবের নুতন সভাপতি খোরশেদ আলম সাধারণ সম্পাদক বেলাল হোছাইন ভূঁইয়া

» করোনা দুর্যোগে নোয়াখালীর ৩০ হাজার মানুষের পাশে প্রধানমন্ত্রীর ব্যক্তিগত সহকারী জাহাঙ্গীর আলম

» বেগমগঞ্জে ঈদের রাতে আ,লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ সহ আহত ৯ গ্রেফতার ৩

» নোয়াখালী সিভিল সার্জন অফিসের ফেসবুক আইডি হ্যাক

» চাটখিলে বাবার বাড়ী থেকে ১ সন্তানের জননীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

» করোনা উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তির কয়েক ঘন্টা পরে মারা গেলেন বেগমগঞ্জের একজন

» স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন ‘উইফরইউ পাঠশালা’র ১২০ শিক্ষার্থী পেল ঈদ উপহার ও নগদ অর্থ

» নোয়াখালীতে নুতন আক্রান্ত ৭৭, চাটখিল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে জরুরী বিভাগ বাদে সব বন্ধ

» নোয়াখালীতে আম্পানে ক্ষতিগ্রস্তদের পাশে দাঁড়িয়েছে সেনাবাহিনীর

ফেইসবুকে প্রিয় নোয়াখালী

সম্পাদক ও প্রকাশক:: কামরুল ইসলাম কানন।
যোগাযোগ:: ০১৭১২৯৮৩৭৫১।
ইমেইল [email protected]
Desing & Developed BY Trust soft bd
,

কোম্পানীগঞ্জে শিক্ষকের বিরুদ্ধে ছাত্রীকে শ্লীলতাহানির অভিযোগ, অতঃপর…

 

গিয়াস উদ্দিন রনি:

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে সংখ্যালঘু পরিবারের পঞ্চম শ্রেণীর এক স্কুল ছাত্রী (১৩), কে শ্লীলতাহানি চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রভাবশালী স্থানীয় শিক্ষকের বিরুদ্ধে।
গত সোমবার (৪ নভেম্বর) সকাল সাড়ে আটটার দিকে উপজেলার মুছাপুর ইউনিয়নের বাংলাবাজারের পূর্ব মুছাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন পাশের ভবনে দ্বিতীয় তলায় ওই ছাত্রী প্রাইভেট পড়তে গেলে এ ঘটনা ঘটে।
অভিযুক্ত মিজানুর রহমান মিলন পূর্ব মুছাপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক এবং একই এলাকার পান কাজী ব্যাপারী বাড়ির মো. ইউছুফ’র ছেলে।
এ বিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি আবুল ফাররাহ মিলন বলেন, বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নজরুল ইসলাম আমাকে ফোনে গতকাল জানিয়েছে এক ছাত্রীর অভিভাবক বিদ্যালয়ে এসে সহকারি শিক্ষক মো.আলমগীর’র কাছে অভিযোগ করেছেন মিলন স্যার এক ছাত্রী প্রাইভেট পড়তে গেলে ডিস্ট্রাব করেছেন। তিনি আরো জানান, আজ ওই ছাত্রীর অভিভাবক লিখিত অভিযোগ দেয়ার কথা ছিল,তবে আজ তারা লিখিত কোন অভিযোগ দেয়নি।
সরেজমিনে বিদ্যালয়ে গেলে সহকর্মি শিক্ষকের বিরুদ্ধে মৌখিকভাবে শ্লীলতাহানির অভিযোগ পাওয়ার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন সহকারি শিক্ষক আলমগীর।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক অভিভাবক জানান, ওই শিক্ষক স্থানীয়ভাবে প্রভাবশালী হওয়ায় শ্লীলতাহানির শিকার সংখ্যালঘু ওই স্কুল ছাত্রীর পরিবার হুমকি ধামকির মুখে ভয়ে ঘটনার ১দিন পরে বলছে, ছাত্রীকে শ্লীলতাহানি করেনি, প্রাইভেট পড়তে গেলে তাকে মারধর করে। অভিভাবক মহল এ ঘটনায় উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
ওই ছাত্রীর চাচা বিধান চন্দ্র দাশ বলেন, যে টুকু ঘটেছে তার জন্য আমরা শিক্ষকের কাছে মৌখিকভাবে বিচার দিয়েছি, লিখিত অভিযোগ দেয়ার মতো কিছু ঘটেনি।
স্থানীয় ইউপি সদস্য আহছান উল্যাহ ভুট্রু বলেন, ওই ছাত্রী আমার সামনে বলেছে শিক্ষক তার গায়ে হাত দিয়েছে। এখন অভিযোগ নাকচ করলে আমাদের কিছু করার নেই।
এ বিষয়ে অভিযুক্ত শিক্ষক মিজানুর রহমান নিজেকে নির্দোষ দাবি করে বলেন, তিনি ষড়যন্ত্রের শিকার।
এ বিষয়ে কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ফয়সেল আহমদ বলেন, মৌখিক ভাবে গণমাধ্যম কর্মিদের থেকে আমি এ শুনেছি। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে এ বিষয়ে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য আমি নির্দেশ দিয়েছি।
কোম্পানীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আরিফুর রহমান বলেন, ছাত্রীর শ্লীলতাহানির ঘটনার কথা শুনেছি। পুলিশ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

বার্তা প্রেরক
গিয়াস উদ্দিন রনি
মু.০১৬৭৬-৬৯৮৬২৬, নোয়াখালী।

Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



web-ad

সর্বশেষ আপডেট





সম্পাদক ও প্রকাশক:: কামরুল ইসলাম কানন।
যোগাযোগ:: ০১৭১২৯৮৩৭৫১।
ইমেইল [email protected]

Developed BY Trustsoftbd