মির্জার যন্ত্রণায় অতিষ্ঠ অনেক ত্যাগী নেতাকর্মি বিভিন্ন দলে যোগদান করেছে: বাদল

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমান বাদল বলেছেন, কোম্পানীগেঞ্জের তথাকথিত জন প্রতিনিধি কোম্পানীগেঞ্জর অপরাজনীতির হোতা আবদুল কাদের মির্জা। যার কারণে কোম্পানীগঞ্জে বুরহান উদ্দিন মুজাক্কির হত্যা,যার নির্দেশে চর ফকিরা ইউনিয়নের শ্রমিক লীগ নেতা আলা উদ্দিন কে হত্যা করা হয়েছে। সে তথাকথিত জনপ্রতিনিধি কাদের মির্জা লাইভে এসে আ.লীগ নেতাদের চরিত্র হনন করেছে। আবদুল কাদের মির্জাকে দুঃসময়ে পাইনি। সে এ কোম্পানীগঞ্জে দলের ভিতর একটা কুলাঙ্গার। সে বলেছে সে ৪৭ বছর রাজনীতি করেছে। এই ৪৭ বছরে উপজেলা আ.লীগ থেকে মেধাবী এবং ত্যাগী ৪৭ হাজার নেতাকর্মি তার যন্ত্রনায় অতিষ্ঠ হয়ে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলে যোগদান করেছে। সেই কুলাঙ্গার ফেসবুক লাইভে এসে আমাকে বলে আমি নাকি নৌকার ভোট করিনি। আমাকে উপজেলা চেয়ারম্যান পদে দলীয় নমিনেশন দিলে তিনি নাকি সে অত্নহত্যা করবে। নেতা তখন অসুস্থ ওনার সহধর্মীনি আমাকে ফোন করে সিঙ্গাপুর থেকে বলেছেন, তোমার নেতার সিদ্ধান্ত তুমি যদি মান তুমি একদিন বড় নেতা হবে।

বুধবার রাতে ফেইসবুক লাইভে কাদের মির্জার মিথ্যাচারের প্রতিবাদে তিনি তার ফেইসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে লাইভে এসে এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আমি আল্লাহকে হাজির নাজির করে বলছি ইসরাতুন্নেছা কাদের কোম্পানীগঞ্জ নিয়ে ১ সেকেন্ডের জন্য মাথা ঘামাননি। ওনার কোন রাজনৈতিক বিলাসিতা নেই। উনি একটা ভদ্র মহিলা,তাকে কুরুচিপূর্ণ কথা বলে হেয় প্রতিপন্ন করার চেষ্টা করছে জনসম্মুখে। ওনার কতটুকু বিবেকবোধ আছে আজকে জনগণের কাছে প্রশ্ন। ওনার বড় ভাই ওনার পিতার সমতুল্য,তাহলে ওনার ভাাবি ওনার মাতার সমতুল্য। সে মাতা তুল্য ভাবিকে কিভাবে নোংরা ভাষায়, আমার মুখ দিয়ে বের করতে আমার বিবেক বাধাগ্রস্থ হ”্ছ।ে এভাবে নোংরাভাবে কথা বলে হেয় প্রতিপন্ন করছেন। শুধু ওনাকে নয়,ওনি আজকে বঙ্গবন্ধু কন্যাকেও ছাড়েন নাই। পিতৃতুল্য ওবায়দুল কাদের সাহেবকেও ছাড়েন নাই,তার চরিত্র হনন করে যাচ্ছেন। একজন মফস্বল এলাকার ২৭ হাজার মানুষের প্রতিনিধি ৪ লক্ষ মানুষের প্রতিনিধিকে বিষেদাগার করে, এই ক্ষমতাটা তাকে কে দিয়েছে।
আজকে কাদের মির্জা সত্য বচনের নামে সারা বংলাদেশে পাগল হিসেবে অখ্যাহিত হয়েছে। ওনি মানুষের নামকে বিৃতভাবে উপস্থাপন করেন। উনি আজকে বিভিন্ন এমপির বিরুদ্ধে টেন্ডারবাজির কথা বলেন-আজকে কোম্পানীগঞ্জবাসীকে আমি প্রশ্ন রাখতে চাই। বসুরহাট পৌরসভার ১৫ বছর ওনি মেয়র, কোন ব্যাক্তি টেন্ডারে এটেন্ড করতে পারেনি,ওনার নির্দেশ ছাড়া।

তিনি আরো বলেন, কোটি কোটি টাকার টেন্ডার ওনি নিজ হাতে (আবদুল কাদের মির্জা) নিয়ন্ত্রন করতেন। নামে বেনামে লাইসেন্স দিয়ে সকল কাজ করে তিনি কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেন। কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাট বাজারে দীঘির পাড়ে পেশী শক্তি দিয়ে একটা মার্কেট নির্মানের করেন। যদিও সেটা বৈধ নয়। সে মার্কেটে ১০০টির উপরে দোকান বরাদ্দ দিয়ে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। আজকে ওনারও সব দরজা বন্ধ হয়ে গেছে,এজন্য ওনি বসুরহাট বাজারের আরেকটি প্রাণকেন্দ্র জিরো পয়েন্টের কাছে মির্জা টাওয়ার নামে নিজ নামে টাওয়ার করছেন। এই বলে সাইনবোর্ড লাগিয়ে কোম্পানীগঞ্জবাসীর থেকে টাকা হাতিয়ে নেয়ার আরেকটি পাঁয়তারা করছেন। আমি কোম্পানীগঞ্জের ব্যবসায়ীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলব তার এ ফাঁদে পা দিবেন না। কারণ মির্জা টাওয়ার এখনো স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে অনুমোদন পায়নি। ওনার এখন সকল দরজা বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে মির্জা টাওয়ারের নামে দোকান বরাদ্দের নামে টাকা হাতিয়ে নিয়ে আমার মনে হয় উনি  আমেরিকায় পাড়ি জমানোর প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে। তাই সকলকে অনুরোধ করবো এ মির্জা টাওয়ারে কেউ দোকান বরাদ্দের চেষ্টা করবেন না।

এসময় মিজানুর রহমান বাদল আবদুল কাদের মির্জার বিরুদ্ধে বিভিন্ন ডির্পাটমেন্টে টেন্ডারবাজি সহ বিভিন্ন অভিযোগ উপস্থাপন করে বলেন- যাদের বিরুদ্ধে তিনি বিষেদাগার করেছেন প্রত্যেকটা জায়গায় কোন না কোন অর্থনৈতিক লেনদেনের সর্ম্পক রয়েছে। সে অর্থনৈতিক লেনদেন যাদের সাথে মিলে নাই তাদের বিরুদ্ধে বক্তব্য দিয়েছেন। নোয়াখালী জেলা আ.লীগের সভাপতির কি প্রশংসাই না ওনি করেছেন। যখনই নোয়াখালী জেলা  আ.লীগের সভাপতি উনাকে  সঠিকপথে চলার জন্য বলেছেন তখনই উনার বিরুদ্ধে,উনাকে বলে মেরুদন্ডহীন প্রানী।

Share Button

সর্বশেষ আপডেট



» চাটখিলে যুবদলের কমিটি পূনঃ গঠনের দাবিতে ৪৮ ঘন্টার আল্টিমেটাম

» বেগমগঞ্জে নববধূকে গলাটিপে হত্যা, স্বামী আটক

» একরাম চৌধুরী ৬ তারিখের মধ্যে আমাকে হত্যা করবে

» চাটখিলে ৫শ পরিবারকে তুর্কি দুতাবাসের খাদ্য সহায়তা প্রদান

» চাটখিলের পাঁচগাঁওতে দরিদ্রদের পাশে চেয়ারম্যান প্রার্থী মঞ্জু

» সুবর্ণচের ৩টি চোরাই মোটরসাইকেলসহ যুবক আটক

» কোম্পানীগঞ্জে নিরুপায় হয়ে প্রধান শিক্ষক থানায় করলেন অভিযোগ

» চাটখিলের রামনারায়নপুরে ছাত্রলীগ নেতার স্মরনে দোয়া ও ইফতার আয়োজন

» দক্ষিন আফ্রিকা ইসলামিক ফোরাম  সভাপতি আলী আকবর সেক্রেটারি শরীফ উদ্দিন

» চাটখিলে করোনা রোগীর তথ্য গোপন করে দাপন

ফেইসবুকে প্রিয় নোয়াখালী

সম্পাদক ও প্রকাশক:: কামরুল ইসলাম কানন।
যোগাযোগ:: ০১৭১২৯৮৩৭৫১।
ইমেইল k[email protected]
Desing & Developed BY Trust soft bd
,

মির্জার যন্ত্রণায় অতিষ্ঠ অনেক ত্যাগী নেতাকর্মি বিভিন্ন দলে যোগদান করেছে: বাদল

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মিজানুর রহমান বাদল বলেছেন, কোম্পানীগেঞ্জের তথাকথিত জন প্রতিনিধি কোম্পানীগেঞ্জর অপরাজনীতির হোতা আবদুল কাদের মির্জা। যার কারণে কোম্পানীগঞ্জে বুরহান উদ্দিন মুজাক্কির হত্যা,যার নির্দেশে চর ফকিরা ইউনিয়নের শ্রমিক লীগ নেতা আলা উদ্দিন কে হত্যা করা হয়েছে। সে তথাকথিত জনপ্রতিনিধি কাদের মির্জা লাইভে এসে আ.লীগ নেতাদের চরিত্র হনন করেছে। আবদুল কাদের মির্জাকে দুঃসময়ে পাইনি। সে এ কোম্পানীগঞ্জে দলের ভিতর একটা কুলাঙ্গার। সে বলেছে সে ৪৭ বছর রাজনীতি করেছে। এই ৪৭ বছরে উপজেলা আ.লীগ থেকে মেধাবী এবং ত্যাগী ৪৭ হাজার নেতাকর্মি তার যন্ত্রনায় অতিষ্ঠ হয়ে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলে যোগদান করেছে। সেই কুলাঙ্গার ফেসবুক লাইভে এসে আমাকে বলে আমি নাকি নৌকার ভোট করিনি। আমাকে উপজেলা চেয়ারম্যান পদে দলীয় নমিনেশন দিলে তিনি নাকি সে অত্নহত্যা করবে। নেতা তখন অসুস্থ ওনার সহধর্মীনি আমাকে ফোন করে সিঙ্গাপুর থেকে বলেছেন, তোমার নেতার সিদ্ধান্ত তুমি যদি মান তুমি একদিন বড় নেতা হবে।

বুধবার রাতে ফেইসবুক লাইভে কাদের মির্জার মিথ্যাচারের প্রতিবাদে তিনি তার ফেইসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে লাইভে এসে এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, আমি আল্লাহকে হাজির নাজির করে বলছি ইসরাতুন্নেছা কাদের কোম্পানীগঞ্জ নিয়ে ১ সেকেন্ডের জন্য মাথা ঘামাননি। ওনার কোন রাজনৈতিক বিলাসিতা নেই। উনি একটা ভদ্র মহিলা,তাকে কুরুচিপূর্ণ কথা বলে হেয় প্রতিপন্ন করার চেষ্টা করছে জনসম্মুখে। ওনার কতটুকু বিবেকবোধ আছে আজকে জনগণের কাছে প্রশ্ন। ওনার বড় ভাই ওনার পিতার সমতুল্য,তাহলে ওনার ভাাবি ওনার মাতার সমতুল্য। সে মাতা তুল্য ভাবিকে কিভাবে নোংরা ভাষায়, আমার মুখ দিয়ে বের করতে আমার বিবেক বাধাগ্রস্থ হ”্ছ।ে এভাবে নোংরাভাবে কথা বলে হেয় প্রতিপন্ন করছেন। শুধু ওনাকে নয়,ওনি আজকে বঙ্গবন্ধু কন্যাকেও ছাড়েন নাই। পিতৃতুল্য ওবায়দুল কাদের সাহেবকেও ছাড়েন নাই,তার চরিত্র হনন করে যাচ্ছেন। একজন মফস্বল এলাকার ২৭ হাজার মানুষের প্রতিনিধি ৪ লক্ষ মানুষের প্রতিনিধিকে বিষেদাগার করে, এই ক্ষমতাটা তাকে কে দিয়েছে।
আজকে কাদের মির্জা সত্য বচনের নামে সারা বংলাদেশে পাগল হিসেবে অখ্যাহিত হয়েছে। ওনি মানুষের নামকে বিৃতভাবে উপস্থাপন করেন। উনি আজকে বিভিন্ন এমপির বিরুদ্ধে টেন্ডারবাজির কথা বলেন-আজকে কোম্পানীগঞ্জবাসীকে আমি প্রশ্ন রাখতে চাই। বসুরহাট পৌরসভার ১৫ বছর ওনি মেয়র, কোন ব্যাক্তি টেন্ডারে এটেন্ড করতে পারেনি,ওনার নির্দেশ ছাড়া।

তিনি আরো বলেন, কোটি কোটি টাকার টেন্ডার ওনি নিজ হাতে (আবদুল কাদের মির্জা) নিয়ন্ত্রন করতেন। নামে বেনামে লাইসেন্স দিয়ে সকল কাজ করে তিনি কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নেন। কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাট বাজারে দীঘির পাড়ে পেশী শক্তি দিয়ে একটা মার্কেট নির্মানের করেন। যদিও সেটা বৈধ নয়। সে মার্কেটে ১০০টির উপরে দোকান বরাদ্দ দিয়ে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন। আজকে ওনারও সব দরজা বন্ধ হয়ে গেছে,এজন্য ওনি বসুরহাট বাজারের আরেকটি প্রাণকেন্দ্র জিরো পয়েন্টের কাছে মির্জা টাওয়ার নামে নিজ নামে টাওয়ার করছেন। এই বলে সাইনবোর্ড লাগিয়ে কোম্পানীগঞ্জবাসীর থেকে টাকা হাতিয়ে নেয়ার আরেকটি পাঁয়তারা করছেন। আমি কোম্পানীগঞ্জের ব্যবসায়ীদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলব তার এ ফাঁদে পা দিবেন না। কারণ মির্জা টাওয়ার এখনো স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় থেকে অনুমোদন পায়নি। ওনার এখন সকল দরজা বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে মির্জা টাওয়ারের নামে দোকান বরাদ্দের নামে টাকা হাতিয়ে নিয়ে আমার মনে হয় উনি  আমেরিকায় পাড়ি জমানোর প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছে। তাই সকলকে অনুরোধ করবো এ মির্জা টাওয়ারে কেউ দোকান বরাদ্দের চেষ্টা করবেন না।

এসময় মিজানুর রহমান বাদল আবদুল কাদের মির্জার বিরুদ্ধে বিভিন্ন ডির্পাটমেন্টে টেন্ডারবাজি সহ বিভিন্ন অভিযোগ উপস্থাপন করে বলেন- যাদের বিরুদ্ধে তিনি বিষেদাগার করেছেন প্রত্যেকটা জায়গায় কোন না কোন অর্থনৈতিক লেনদেনের সর্ম্পক রয়েছে। সে অর্থনৈতিক লেনদেন যাদের সাথে মিলে নাই তাদের বিরুদ্ধে বক্তব্য দিয়েছেন। নোয়াখালী জেলা আ.লীগের সভাপতির কি প্রশংসাই না ওনি করেছেন। যখনই নোয়াখালী জেলা  আ.লীগের সভাপতি উনাকে  সঠিকপথে চলার জন্য বলেছেন তখনই উনার বিরুদ্ধে,উনাকে বলে মেরুদন্ডহীন প্রানী।

Share Button

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



web-ad

সর্বশেষ আপডেট





সম্পাদক ও প্রকাশক:: কামরুল ইসলাম কানন।
যোগাযোগ:: ০১৭১২৯৮৩৭৫১।
ইমেইল [email protected]

Developed BY Trustsoftbd