Dhaka ০২:৪৪ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ০৯ জুন ২০২৪

সোনাইমুড়ীতে খন্দকার রুহুল আমিনের বক্তব্য নিয়ে প্রতিক্রিয়া, যা বলছেন এমপি আর ওসি

  • আপডেট: ০৬:৫৪:৫২ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ মে ২০২৩
  • 237

 

শনিবার বিকেলে সোনাইমুড়ী বাইপাস চত্বরে দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে মতবিনিময় সভায় সোনাইমুড়ী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান খোন্দকার রুহুল আমিন বলেন,ক্ষমতায় থেকে দলীয় নেতাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে পকেটে ইয়াবা ঢুকিয়ে মামলা দিচ্ছেন তারা দলের কর্মীদের মামলা প্রত্যাহার না করা হলে সোনাইমুড়ীতে ঢুকতে দেয়া হবে না।

যারা গ্রুপিং সৃষ্টি করে দলীয় নেতাকর্মীদের মারামারি লাগিয়ে মামলা দিয়ে রাখছেন। দল ক্ষমতায় থেকেও মামলা নিয়ে কোর্টে দৌড়াদৌড়ি করতে হয় নেতাকর্মীদের। আর যদি কোনো নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে মিথ্যা মামলা দেওয়া হয় তাহলে আমার নেতৃত্বে রাজপথে থেকে মামলা প্রতিহত করবো এবং এজাতীয় লোকদের সোনাইমুড়ীতে ঢুকতে দিবো না।

তার এ বক্তব্য নিয়ে সর্ব মহলে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।

গ্রুপিং সৃষ্টি করে দলীয় নেতাকর্মীদের মারামারি লাগিয়ে মামলার অভিযোগের খন্দকার রুহুল আমিনের এই বক্তব্যের বিষয়ে জানতে এইচ এম ইব্রাহিম এমপিকে কল করলে তিনি জানান, আমার নির্বাচনীয় এলাকায় (চাটখিল সোনাইমুড়িতে)কোন গ্রুপিং এবং দলীয় কোন মামলা হয় নি।নির্বাচন এগিয়ে আসলে কিছু লোক সুবিধা নেওয়ার জন্য কিছু অসত্য বক্তব্য দিয়ে বিভাজন সৃষ্টি করার চেষ্টা করবে। কিন্তু আমি জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দদের নিয়ে নৌকার পক্ষে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করবো ইনশাআল্লাহ।

পকেটে ইয়াবা ঢুকিয়ে মামলা এবং দলীয় মামলার বিষয় সোনাইমুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ( ওসি) জিয়াউল হকের নিকট জানতে চাইলে তিনি জানান, সোনাইমুড়ীতে কোন দলীয় মামলা হয় নি,এ বক্তব্য সম্পূর্ণ মিথ্যা বানোয়াট খোরশেদ ও আবু সায়েমের বিরুদ্ধে যে মামলা হয়েছে তা মারামারির মামলা এ মামলায় সুনির্দিষ্ট বাদী রয়েছে এবং কোন অপরাধী অপরাধ করলে তাকে আটক করতে হবে। সে যে দলেরই হোক পুলিশ কোন নেতা কর্মীর পকেটে মাদক দিয়ে মামলা দেয় নি।পুলিশের সোর্সের মাধ্যমে প্রকৃত মাদক ব্যবসায়ীদের আটক করা হচ্ছে।

মতবিনিময় সভায় দেওয়া বক্তব্যে দলীয় মামলার সত্যতা জানতে চাইলে খোন্দকার রুহুল আমিন জানান,মামলার বিষয় সত্য না হলে আমি কেনো এ মামলার বিষয় কথা বলবো,আপনি প্রয়োজনে মেয়র প্রার্থী খোরশেদ আলম (নৌকার বিদ্রোহী প্রার্থী) এবং আবু সায়েম কে কল করে জেনে নিন তাদের বিরুদ্ধেও তাদের নেতা কর্মীদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে মিথ্যা মামলা দেওয়া হয়।

Tag :
সর্বাধিক পঠিত

চাটখিলে  ছাত্রলীগ নেতার ব্যক্তিগত তহবিল থেকে ৩শ নেতাকর্মীদের ঈদ উপহার

সোনাইমুড়ীতে খন্দকার রুহুল আমিনের বক্তব্য নিয়ে প্রতিক্রিয়া, যা বলছেন এমপি আর ওসি

আপডেট: ০৬:৫৪:৫২ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ মে ২০২৩

 

শনিবার বিকেলে সোনাইমুড়ী বাইপাস চত্বরে দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে মতবিনিময় সভায় সোনাইমুড়ী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান খোন্দকার রুহুল আমিন বলেন,ক্ষমতায় থেকে দলীয় নেতাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে পকেটে ইয়াবা ঢুকিয়ে মামলা দিচ্ছেন তারা দলের কর্মীদের মামলা প্রত্যাহার না করা হলে সোনাইমুড়ীতে ঢুকতে দেয়া হবে না।

যারা গ্রুপিং সৃষ্টি করে দলীয় নেতাকর্মীদের মারামারি লাগিয়ে মামলা দিয়ে রাখছেন। দল ক্ষমতায় থেকেও মামলা নিয়ে কোর্টে দৌড়াদৌড়ি করতে হয় নেতাকর্মীদের। আর যদি কোনো নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে মিথ্যা মামলা দেওয়া হয় তাহলে আমার নেতৃত্বে রাজপথে থেকে মামলা প্রতিহত করবো এবং এজাতীয় লোকদের সোনাইমুড়ীতে ঢুকতে দিবো না।

তার এ বক্তব্য নিয়ে সর্ব মহলে মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে।

গ্রুপিং সৃষ্টি করে দলীয় নেতাকর্মীদের মারামারি লাগিয়ে মামলার অভিযোগের খন্দকার রুহুল আমিনের এই বক্তব্যের বিষয়ে জানতে এইচ এম ইব্রাহিম এমপিকে কল করলে তিনি জানান, আমার নির্বাচনীয় এলাকায় (চাটখিল সোনাইমুড়িতে)কোন গ্রুপিং এবং দলীয় কোন মামলা হয় নি।নির্বাচন এগিয়ে আসলে কিছু লোক সুবিধা নেওয়ার জন্য কিছু অসত্য বক্তব্য দিয়ে বিভাজন সৃষ্টি করার চেষ্টা করবে। কিন্তু আমি জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দদের নিয়ে নৌকার পক্ষে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করবো ইনশাআল্লাহ।

পকেটে ইয়াবা ঢুকিয়ে মামলা এবং দলীয় মামলার বিষয় সোনাইমুড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ( ওসি) জিয়াউল হকের নিকট জানতে চাইলে তিনি জানান, সোনাইমুড়ীতে কোন দলীয় মামলা হয় নি,এ বক্তব্য সম্পূর্ণ মিথ্যা বানোয়াট খোরশেদ ও আবু সায়েমের বিরুদ্ধে যে মামলা হয়েছে তা মারামারির মামলা এ মামলায় সুনির্দিষ্ট বাদী রয়েছে এবং কোন অপরাধী অপরাধ করলে তাকে আটক করতে হবে। সে যে দলেরই হোক পুলিশ কোন নেতা কর্মীর পকেটে মাদক দিয়ে মামলা দেয় নি।পুলিশের সোর্সের মাধ্যমে প্রকৃত মাদক ব্যবসায়ীদের আটক করা হচ্ছে।

মতবিনিময় সভায় দেওয়া বক্তব্যে দলীয় মামলার সত্যতা জানতে চাইলে খোন্দকার রুহুল আমিন জানান,মামলার বিষয় সত্য না হলে আমি কেনো এ মামলার বিষয় কথা বলবো,আপনি প্রয়োজনে মেয়র প্রার্থী খোরশেদ আলম (নৌকার বিদ্রোহী প্রার্থী) এবং আবু সায়েম কে কল করে জেনে নিন তাদের বিরুদ্ধেও তাদের নেতা কর্মীদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করে মিথ্যা মামলা দেওয়া হয়।