Dhaka ০২:৩৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ০৯ জুন ২০২৪

অবশেষে সরকারি দলের সন্ত্রাসীদের হামলায় গুরুতর আহত সেই বিএনপি কর্মীর বাবার মৃত্য

  • আপডেট: ১১:৪৭:৪৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুলাই ২০১৭
  • 0

 

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট:

নোয়াখালীর চাটখিলে আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসীদের হামলায় গুরুতর আহত বিএনপি কর্মী মো: আবরারুল হক রাসেলের বাবা হাবিব উল্যাহঅ বশেষে মারা গেছেন।

আজ বৃহস্পতিবার তিনি তার নিজ বাড়িতে অসুস্থ অবস্থায় মারা যান। বিষয়টি নিশ্চিত করেছে রাসেলের পরিবার।
স্থানীয়রা গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, গত ১০ মে রাত ১০ টার দিকে চাটখিল উপজেলার কড়িহাটি বাজারে নিজেদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে বাড়ি ফিরছিলেন বিএনপি কর্মী মো: আবরারুল হক রাসেল। তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে অল্প কিছু পথ পার হওয়ার পরে ওই এলাকার চিহ্নিত ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ দলীয় চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা তার পথরোধ করে জানতে চায় সে কেন আওয়ামী লীগের সমাবেশে যোগ দেয়নি? এ নিয়ে তার সাথে সন্ত্রাসীদের তর্ক বেঁধে যায়। একপর্যায়ে সন্ত্রাসীরা তার উপর হামলা করে। রাসেলের আত্মচিৎকারে তার বাবা ঘটনাস্থলে ছুটে এসে ছেলেকে বাঁচাতে চেষ্টা করলে সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা তাকেও হকি স্টিক দিয়ে বেদম মারধর করে গুরুতর আহত করে। বাবার উপর হামলা দেখে আহত রাসেলের চিৎকারে স্থানীয়রা কয়েকজন এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসীরা স্থান ত্যাগ করে। গুরুতর আহত বাবা আর ছেলেকে চাটখিল ডাক্তার নোমান হসপাতালে নিয়ে গিয়ে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করেন তারা। সেখানে চিকিৎসা নিয়ে রাসেল সুস্থ হলেও তার বাবা মস্তিষ্কে মারাত্মক আঘাত পাওয়ায় তিনি দীর্ঘদিন হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে গত তিনদিন আগে নিজের বাড়ি সোনাইমুড়ি উপজেলার আমিরাবাদ গ্রামে আসেন। গতকাল তিনি আবার অসুস্থ হয়ে পড়লে অবশেষে তার পরিবার তাকে আবারো হাসপাতালে নেওয়ার প্রস্তুতি নিলে তিনি দুপুরে নিজ বাড়িতে মারা যান।
তার পরিবার পুলিশের প্রতি অভিযোগ করে বলছেন,এত বড় একটি ঘটনা ঘটার পরেও চাটখিল থানায় সরকারি দলের সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দিতে চাইলে পুলিশ অভিযোগ নিতে অস্বীকার করে।
এ ব্যাপারে পুলিশের বক্তব্য জানতে আমরা চাটখিল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার মোবাইল ফোনে বেশ কয়েকবার কল করলেও তিনি তা রিসিভ করেননি।
এই ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছেন বিএনপি’র যুগ্ম মহাসচিব ও নোয়াখালী ১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন। তিনি অবিলম্বে খুনিদের গ্রেপ্তার করে এই বর্বরোচিত হত্যা বিচারের দাবি জানান।

Tag :
সর্বাধিক পঠিত

চাটখিলে  ছাত্রলীগ নেতার ব্যক্তিগত তহবিল থেকে ৩শ নেতাকর্মীদের ঈদ উপহার

অবশেষে সরকারি দলের সন্ত্রাসীদের হামলায় গুরুতর আহত সেই বিএনপি কর্মীর বাবার মৃত্য

আপডেট: ১১:৪৭:৪৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৩ জুলাই ২০১৭

 

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট:

নোয়াখালীর চাটখিলে আওয়ামী লীগের সন্ত্রাসীদের হামলায় গুরুতর আহত বিএনপি কর্মী মো: আবরারুল হক রাসেলের বাবা হাবিব উল্যাহঅ বশেষে মারা গেছেন।

আজ বৃহস্পতিবার তিনি তার নিজ বাড়িতে অসুস্থ অবস্থায় মারা যান। বিষয়টি নিশ্চিত করেছে রাসেলের পরিবার।
স্থানীয়রা গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন, গত ১০ মে রাত ১০ টার দিকে চাটখিল উপজেলার কড়িহাটি বাজারে নিজেদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে বাড়ি ফিরছিলেন বিএনপি কর্মী মো: আবরারুল হক রাসেল। তাদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান থেকে অল্প কিছু পথ পার হওয়ার পরে ওই এলাকার চিহ্নিত ক্ষমতাসীন আওয়ামীলীগ দলীয় চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা তার পথরোধ করে জানতে চায় সে কেন আওয়ামী লীগের সমাবেশে যোগ দেয়নি? এ নিয়ে তার সাথে সন্ত্রাসীদের তর্ক বেঁধে যায়। একপর্যায়ে সন্ত্রাসীরা তার উপর হামলা করে। রাসেলের আত্মচিৎকারে তার বাবা ঘটনাস্থলে ছুটে এসে ছেলেকে বাঁচাতে চেষ্টা করলে সশস্ত্র সন্ত্রাসীরা তাকেও হকি স্টিক দিয়ে বেদম মারধর করে গুরুতর আহত করে। বাবার উপর হামলা দেখে আহত রাসেলের চিৎকারে স্থানীয়রা কয়েকজন এগিয়ে আসলে সন্ত্রাসীরা স্থান ত্যাগ করে। গুরুতর আহত বাবা আর ছেলেকে চাটখিল ডাক্তার নোমান হসপাতালে নিয়ে গিয়ে চিকিৎসার জন্য ভর্তি করেন তারা। সেখানে চিকিৎসা নিয়ে রাসেল সুস্থ হলেও তার বাবা মস্তিষ্কে মারাত্মক আঘাত পাওয়ায় তিনি দীর্ঘদিন হাসপাতালে চিকিৎসা নিয়ে গত তিনদিন আগে নিজের বাড়ি সোনাইমুড়ি উপজেলার আমিরাবাদ গ্রামে আসেন। গতকাল তিনি আবার অসুস্থ হয়ে পড়লে অবশেষে তার পরিবার তাকে আবারো হাসপাতালে নেওয়ার প্রস্তুতি নিলে তিনি দুপুরে নিজ বাড়িতে মারা যান।
তার পরিবার পুলিশের প্রতি অভিযোগ করে বলছেন,এত বড় একটি ঘটনা ঘটার পরেও চাটখিল থানায় সরকারি দলের সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে লিখিত অভিযোগ দিতে চাইলে পুলিশ অভিযোগ নিতে অস্বীকার করে।
এ ব্যাপারে পুলিশের বক্তব্য জানতে আমরা চাটখিল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার মোবাইল ফোনে বেশ কয়েকবার কল করলেও তিনি তা রিসিভ করেননি।
এই ঘটনায় নিন্দা জানিয়েছেন বিএনপি’র যুগ্ম মহাসচিব ও নোয়াখালী ১ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন। তিনি অবিলম্বে খুনিদের গ্রেপ্তার করে এই বর্বরোচিত হত্যা বিচারের দাবি জানান।